দ্রব্য মুল্যের উর্ধ গতি, রমজানে কেমন আছেন মধ্যবিত্ত পরিবার গুলো

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: মেহেদী হাসান মাছুম: পবিত্র মাহে রমজানের আজ ১০তম রমজান ৪মে, কেমন আছে গরিব অসহায় মধ্যবিত্ত পরিবার গুলো।সারা বিশ্ব যখন করনা ভাইরাস আতঙ্কে আতঙ্কিত চার দিকে যখন মৃত্যুর মিছিল, এক দেশের সাথে অন্যে দেশে আমদানি রপ্তানি বন্ধ, বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চলছে লক ডাউন, ঠিক তেমনি ভাবে গরিব, মধ্যবিত্ত দিন মুজুর মানুষ গুলোর উপর্জনের পথ ও বন্ধ, সাধারণ মানুষের এই দূর্দিনে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী যেনো মাথা ছাড়া দিয়ে উঠছে,ইচ্ছে মতো করে নিচ্ছে ব্যবসা। নিজেদের মন মতো বাড়িয়ে দিচ্ছে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রর দাম।

যেমনঃ- যে চাউল লক ডাউনের আগের প্রতি কেজি বাজার মুল্যে ছিলো ৪০ টাকা এখন রমজানে তা বিক্রয় হচ্ছে ৪৮-৫০ টাকায়। আলুতে দাম বেড়েছে ৫-৭ টাকা করে, লক ডাউনের আগে আলুর বাজার মুল্যে ছিলো ১৭ টাকা,এখন তা বিক্রয় হচ্ছে ২২-২৫ টকায়,পেয়াজের প্রতি কেজি লক ডাউনের আগের বাজার মুল্যে ছিলো ৩০ টাকা, এখন রমজানে বেড়ে বিক্রয় হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা।৮০টাকার মুশরের ডাউলে প্রতি কেজিতে বেড়েছে ৫০ -৬০ টাকা । ১৫০ আদার প্রতি কেজিতে বেড়েছে ১৩০-১৫০ টাকা অথাৎ রমজানে ২৮০ থেকে ৩০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এই অসাদু ব্যবসায়ী রা মানছে না সরকারের নির্দশনা, কত টুকু আইন গত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে প্রশাসন জন মনে প্রশ্ন থেকেই যায়। দেশে লক ডাউনের আজ প্রায় ২ মাস , লক ডাউন এর প্রথম দিকে যদিও সরকারি, ব্যক্তিগত ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন এর উদ্যোগে গরিব অসহায় মানুষদের বিভিন্ন ত্রান সামগ্রী সাহায্য করা হয়। গরিব অসহায় মানুষের মাঝে যেকোনো ভাবে ত্রান সামগ্রী পৌঁছে গেছে, কিন্তু যারা মধ্যেবিত্ত তারা কি অবস্থায় আছে .? মধ্যেবিত্ত মানেই কারো কাছে হাত না পেতে, না খেয়ে মরে যাবে এর পর ও কারো কাছে হাত পাতবে না। প্রশাসন যদি এখনি ব্যবস্থা না নেয়,তাহলে বিশ্বের এই ক্লান্তি লগ্নে রমজানে দ্রব্য মুল্যের উর্ধ গতি মধ্যবিত্ত মানুষের জীবন যাপন করা অতিষ্ঠ হয়ে পড়বে।

ফেসবুকে লাইক দিন