তুরস্কের সেনা অভ্যুত্থানের চেষ্টা, এরদোগান সরকারের হাতে ১০ জন গ্রেফতার

ইমান২৪.কম: সরকারবিরোধী অভ্যুত্থান উসকে দেওয়ার অভিযোগে তুরস্কে নৌ বাহিনীর সাবেক ১০ অ্যাডমিরালকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আরও চার কর্মকর্তাকে তিন দিনের মধ্যে থানায় হাজির হতে বলা হয়েছে। অধিক বয়স বিবেচনায় ওই চারজনকে গ্রেফতার করা হয়নি। দেশটির প্রধান প্রসিকিউটরের দফতরের বরাতে এ খবর জানিয়েছে আল-জাজিরা।

এর আগে, মার্চ মাসে পানামা বা সুয়েজ খালের মতো ইস্তাম্বুলে একটি খাল খনন করার অনুমোদন দেয় তুরস্ক। প্রধান জলপথকে ঘিরে নেওয়া নতুন পরিকল্পনার কারণে ১৯৩৬ সালের মনট্রিয়াক্স চুক্তি হুমকির মুখে পড়তে পারে এমন সতর্কতার কথা জানিয়ে একটি খোলা চিঠি লেখেন নৌ বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত ১০৪ কর্মকর্তা। এর পরপরই তাদের ১০ জনকে গ্রেফতার করা হলো।

ওই চিঠিতে তুরস্ক সরকারের সমালোচনা করায় সোমবার (৫ এপ্রিল) তাদের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়। এদিকে, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ানের সবচেয়ে উচ্চাকাঙ্ক্ষী প্রকল্প ইস্তাম্বুল খাল। যেখানে নতুন বিমানবন্দর, সেতু, রাস্তা ও টানেল নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে।

অন্যদিকে, যুদ্ধ ও শান্তিকালীন উভয় সময় বসফরাস ও দার্দানেলিস প্রণালিতে বেসামরিক নৌ যান কোনো ধরনের বাধা ছাড়াই চলাচলের কথা মন্ট্রিয়াক্স চুক্তিতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া ওই দুই প্রণালির সীমানার অভ্যন্তরে তুরস্কের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের কথাও চুক্তিটিতে রয়েছে।

ওই খোলা চিঠিতে নৌ বাহিনীর কর্মকর্তারা বলেছিলেন, মনট্রিয়াক্স চুক্তি নিয়ে তর্ক-বিতর্ক শুরু হওয়া উদ্বেগের। ওই চুক্তিই তুরস্কের স্বার্থ সবচেয়ে বেশি সুরক্ষিত রেখেছে। তুরস্কের টেলিভিশন চ্যানেল এনটিভির বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, সাংবিধানিক নির্দেশ থেকে বাঁচতে সাবেক নৌ কর্মকর্তারা বলপ্রয়োগ এবং সহিংসতার আশ্রয় নিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

রোববার (৪ এপ্রিল) রাষ্ট্রের ‘নিরাপত্তা ও সাংবিধানিক নির্দেশের বিরুদ্ধে অপরাধ সংগঠনের’ সন্দেহে অবসরপ্রাপ্ত নৌ কর্মকর্তাদের নিয়ে তদন্ত শুরু করে রাষ্ট্রপক্ষের প্রসিকিউটর। গ্রেফতার হওয়া ১০ জনের মধ্যে একজন সেম গারদেনিজ। ‘ব্লু হোমল্যান্ড’ নামে তুরস্কের বিতর্কিত নতুন সামুদ্রিক তত্ত্বের জনক তিনি। গারদেনিজের ব্লু হোমল্যান্ড তত্ত্ব তুরস্কে সম্প্রতি জনপ্রিয় হয়। বিশেষ করে ২০২০ সালে পূর্ব ভূমধ্যসাগরে তুরস্কের গ্যাস অনুসন্ধানকে ঘিরে গ্রিস ও তুরস্কের মধ্যকার উত্তেজনা প্রশমনে ওই তত্ত্ব কাজে দেয়।

ব্লু হোমল্যান্ড তত্ত্বে বলা হয়, গ্রিসের কয়েকটি দ্বীপ ঘিরে থাকা জলপথসহ সব সামুদ্রিক সীমান্তের ওপর অধিকার তুরস্কের রয়েছে। নৌবাহিনীর ১০৪ কর্মকর্তার চিঠি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে তুরস্কের কর্মকর্তারা জানান, চিঠিতে সামরিক অভ্যুত্থানের আহ্বান করা হয়েছিল বলে প্রমাণ হচ্ছে। এ ব্যাপারে তুরস্কের স্পিকার মুস্তফা সেনটোপ বলেন, কেউ যদি নিজের ভাবনার কথা জানায়, তা এক বিষয়। কিন্তু ঘোষণা দিয়ে অভ্যুত্থানের ডাক দেয়া ভিন্ন বিষয়।

প্রসঙ্গত, ১৯৬০ ও ১৯৮০ সালের মধ্যে তুরস্কে তিনবার সামরিক অভ্যুত্থান হয়। ২০১৬ সালে এরদোয়ানকে ক্ষমতাচ্যুত করতে সামরিক অভ্যুত্থানের চেষ্টা করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মুসলমান ধর্মপ্রচারক ফেতুল্লাহ গুলেনের অনুসারীরা ওই সেনা অভ্যুত্থান করতে চেয়েছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন