তারাবি’র জামাত নিয়ে বিজয় টিভির তামাশা আজই বন্ধ করুন: আল্লামা কাসেমী

ইমান২৪.কম: আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী বলেছেন, বিজয় টিভি নামের একটি চ্যানেল টেলিভিশন লাইভে তারাবির ইমামতি সম্প্রচারের নামে ইসলামের বিধান নিয়ে রীতিমতো তামাশা শুরু করছে।

আমরা বিজয় টিভির তারাবি’র জামাত নিয়ে ধৃষ্টতাপূর্ণ উদ্যোগের তীব্র নিন্দা জানিয়ে অনতিবিলম্বে এই সম্প্রচার বন্ধের দাবি জানাচ্ছি। আজ (২৯ এপ্রিল) বুধবার এক বিবৃতিতে জমিয়ত মহাসচিব আরো বলেন, বিজয় টিভি কর্তৃপক্ষ একজনকে তারাবির নামাজের ইমাম বানিয়ে টেলিভিশনে সম্প্রচার করে সাধারণ মানুষকে টেলিভিশন সেটের পেছনে ইক্বেতেদা করতে আহ্বান জানাচ্ছে।

এটা উলামায়ে কেরামের সর্বসম্মতিক্রমে কোন অবস্থাতেই বৈধ জামাত তো নয়ই, বরং শরীয়তের দৃষ্টিতে এমন উদ্যোগ শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে।

আল্লামা কাসেমী বলেন, ইসলামের বিধান মতে জামায়াতবদ্ধ বিশুদ্ধ নামাযের জন্য ইমামকে স্বশরীরে জামায়াতস্থলে উপস্থিত থাকতে হবে। ইমামের অবস্থান মুসল্লীদের সম্মুখভাগে হতে হবে।

মুসল্লীদেরকে ইমামের পশ্চাতে দাঁড়াতে হবে এবং এক কাতারের সাথে আরেক কাতারের সম্পৃক্ততা থাকতে হবে। এর বিপরীত হলে জামায়াত বিশুদ্ধ হবে না এবং নামায বাতিল হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, লাইভ সম্প্রচারে ইমামের আওয়াজ শুনেই যদি ইক্বতিদা করে নামায পড়া যায়, তাহলে তো কাউকে আর মসজিদে যেতে হবে না। প্রতি রাকআতে এক লক্ষ রাকআতের সাওয়াব অর্জনের জন্য মক্কায় যেতে হবে না।

মক্কার ইমাম সাহেবের লাইভ সম্প্রচার শুনে বিশ্বের সকলে বাসাবাড়িতে ইক্বতিদা করলেই হয়ে যাবে এবং এক রাকআতে লাখ রাকআতের সাওয়াব পেয়ে যেতো।

অথচ এমন চিন্তাভাবনাও যে ইসলামবিরোধী ধৃষ্টতা, এটা অতি সাধারণ একজন মুসলমানও জানেন। তিনি বলেন, পবিত্র রমজান মাসে তারাবি’র মতো একটা গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত নিয়ে একটা টেলিভিশন চ্যানেল ইসলামের বিধান নিয়ে শুধু ধৃষ্টতাপূর্ণ তামাশাই করছে না, বরং সাধারণ মুসলমানদের নামায নষ্ট করতেও ষড়যন্ত্রে মেতেছে।

তারা মুসলমানদের নামায নষ্ট করবে, ইকতেদা নষ্ট করবে, এটা কোনভাবেই চেয়ে চেয়ে নীরবে দেখে যাওয়ার সুযোগ নেই। ধর্মমন্ত্রণালয় ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ না নেওয়ায় তাওহিদী জনতাকে গভীরভাবে হতাশ করেছে।

ফেসবুকে লাইক দিন