যুক্তরাষ্ট্রের বড় শহরগুলোতে সতর্কতা: যে কোন মুহূর্থে ইরানের হামলা

এখনবাংলা: সোলাইমানিকে হত্যার জবাব সামরিক হামলায় দেয়ার হুশিয়ারি দিয়েছে ইরান। এরমধ্যেই পাল্টা হামলার আশঙ্কায় কয়েকটি শহরে সতর্কতা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

এছাড়া স্পর্শকাতর জায়গাগুলোতে নিরাপত্তাও বাড়িয়েছে দেশটি। আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ইরানের পাল্টা হামলার আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি বড় শহরে সতর্কতা জারি করা

হয়েছে। এসব শহরের বাসিন্দাদের সতর্ক থাকারও পরামর্শ দিয়েছে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী। বৃহস্পতিবার রাতে বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত ইরানি জেনারেল কাসেম

সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে তেহরান। দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি বলেছেন, যারা এই হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী, সেই সব অপরাধীদের জন্য

কঠিন প্রতিশোধ অপেক্ষা করছে। নিউইয়র্কের মেয়র বিল ড্য ব্লাসিনো জানান, যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে ইরান বা তাদের সন্ত্রাসী মিত্রদের যেকোনও হামলা ঠেকাতে আমাদের প্রস্তুতি

রয়েছে। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, এই হুমকি মোকাবিলায় দীর্ঘদিন সজাগ থাকবে শহর কর্তৃপক্ষ। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোর নিরাপত্তা বাড়াতে পুলিশের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলেও

জানিয়েছেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি দফতরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী শাদ ওলফ বলেছেন, আইনশৃঙ্খলাবাহিনী ও অন্যদের সঙ্গে মিলে দেশজুড়ে কাজ করছে তার দফতর। এখন পর্যন্ত

কোনও হুমকি শনাক্ত না হলেও যেকোনও কিছুর জবাব দেয়ার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এদিকে শুক্রবার রাতে সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে জাতিসংঘে ইরানি রাষ্ট্রদূত মজিদ তাখত বলেন,

ইরানের জনগণের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এটা একটা যুদ্ধের শামিল। তিনি বলেন, আমাদের এক শীর্ষ জেনারেলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে তাকে গুপ্তহত্যার মাধ্যমে গত রাতে

তারা (যুক্তরাষ্ট্র) সামরিক যুদ্ধ শুরু করেছে। এর জবাবে ইরান কী করবে বলে আশা করা যায়? আমরা নীরব থাকতে পারি না। আমাদের পদক্ষেপ নিতে হবে, আমাদের পদক্ষেপ নিতে হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন