ট্রাম্পের পরাজয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমের আর্তনাদ

ইমান২৪.কম: নির্বাচন হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। কিন্তু পুরো বিশ্বের কোটি কোটি মানুষের ঘুম হারাম। বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্য আর এশিয়ার দেশগুলোর টেনশন যেনো সবচেয়ে বেশি। এশিয়ার দেশ ভারত-পাকিস্তান এবং চীনের গণমাধ্যমগুলো দুই ভাগ হয়ে পড়েছে।

বিহার নির্বাচন বা অর্ণব গোস্বামীর গ্রেপ্তার নয়, ভারতীয় মিডিয়াও ব্যস্ত ট্রাম্পের জয়-পরাজয় নিয়ে৷ কূটনৈতিক বা ভূ-রাজনৈতিক সমীকরণে তারা টেনে আনছে চীনকেও৷ ট্রাম্প না জো বাইডেন? কে জিতলে ভারতের লাভ? এমন সমীকরণে গেল কয়েকদিন ধরেই ব্যস্ত ভারতীয় গণমাধ্যম৷ বিশ্লেষকরা একের পর এক মতামত, মন্তব্য প্রতিবেদনে ভরিয়ে ফেলছেন পত্রিকার পাতা৷

টিভিজুড়ে চলেছে সংলাপ৷ এমনকি নির্বাচনের দিন ভারতীয় টিভি পর্দাগুলো জুড়ে মার্কিন মুল্লুকের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের খবরই গুরুত্ব পাচ্ছে৷ অবস্থা দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে ট্রাম্পের পরাজয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম আর্তনাদ করছে।

এদিকে একইদিনে বিহার রাজ্যে চলছে নির্বাচন এবং তারকা সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীকে চ্যাংদোলা করে পুলিশের গ্রেপ্তারও বড় ঘটনা এদিনকার মিডিয়ায়৷ তবে এসবকে ছাপিয়ে গেছে মার্কিন নির্বাচন৷ আনন্দবাজার পত্রিকার অনলাইনে ট্রাম্পের বক্তব্য-অভিযোগ এগুলোকেই ওপরে থেকেছে৷ দ্য হিন্দুতেও শিরোনামে মার্কিন নির্বাচনের লাইভ আপডেট৷ ট্রাম্পের কোর্টে যাবার হুমকি ধামকিগুলোও গুরুত্ব পেয়েছে৷

তারা ‘হাউজ অফ রেপ্রেজেন্টেটিভস’দের নিয়ে একটি প্রতিবেদনে বলেছে, ভারতীয় বংশোদ্ভূত ডেমোক্র্যাটিক চার প্রার্থীর সবাই জিতেছে৷ একই খবর গুরুত্ব পেয়েছে টাইমস অফ ইন্ডিয়াতেও৷ পত্রিকাগুলো কিছু বিশ্লেষণও ছেপেছে ৷

সেখানে বলা হচ্ছে, কৌশলগত দিকে ট্রাম্পের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক অনেক দ্রুত গভীরে পৌঁছেছে৷ তাই ফলাফলের ওপর এই সম্পর্কের গভীরতায় পরিবর্তন আসতে পারে৷ কিন্তু সেই সম্পর্কের প্রভাব বেশ কিছু ভূরাজনৈতিক সমীকরণের ওপর নির্ভরশীল৷ চীন, ইন্দো-প্যাসিফিক, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান ইস্যুগুলোতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রভাব পড়বে বলে মনে করা হচ্ছে৷

আরো বলা হচ্ছে, কাশ্মীর ইস্যু, নাগরিকত্ব আইন, দিল্লি রায়ট এসব বিষয় নিয়ে ডেমোক্র্যাটরা সরব৷ কিন্তু ট্রাম্প এসব নিয়ে নিশ্চুপ থাকার সিদ্ধান্ত নেন৷ তাই প্রেসিডেন্ট পরিবর্তন হলে এসব বিষয়েও এর প্রভাব পড়বে৷ ডয়চে ভেলে

ফেসবুকে লাইক দিন