গাড়ি পোড়ানোর মামলায় ইশরাকসহ আসামি ৪ শতাধিক

ইমান২৪.কম: রাজধানীতে বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায় বিএনপির ইশরাক হোসেন, ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং যুবদলের সাধারণ সম্পাদকসহ মোট ৪৬০ জনকে আসামি করে ১০টি মামলা করা হয়েছে। মামলাগুলোয় এ পর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়েছে ২১ জনকে।

ডিএমপি বলছে, রাজধানীজুড়ে নাশকতার ঘটনায় ভাড়াটে অপরাধীরা অংশ নেয়। তাদের উদ্দেশ্য ছিল, জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করা। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে চলছে নাশকতাকারীদের শনাক্তের চেষ্টা। বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ১০টি বাস পোড়ানোর ঘটনায় জড়িতদের ধরতে বেশিরভাগকে এরই মধ্যে শনাক্তের দাবি পুলিশের।

ডিএমপির সবশেষ তথ্য অনুযায়ী প্রায় সাড়ে চারশ জনকে আসামি করে ৯টি মামলা হয়েছে। ভাটারা থানার একটি মামলায় সর্বোচ্চ ৯৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। মতিঝিল থানায় দুই মামলায় আসামি করা হয়েছে ৮৫ জনকে।

শাহবাগ ও পল্টন থানার চারটি মামলায় আসামি করা হয়েছে ১৪৯ জনকে। সর্বোচ্চ ৯ জনকে গ্রেফতার করেছে পল্টন থানা পুলিশ। ডিএমপি বলছে, নাশকতায় ভাড়াটে অপরাধীরা অংশ নেয়।

ডিএমপি মিডিয়া শাখার পরিচালক মো. ওয়ালিদ হোসেন বলেন, সুপরিকল্পিতভাবে যেহেতু করেছে সেহেতু তাদের দলীয় পরিচয় আছে। আমরা সেগুলো নিয়ে বিস্তারিত যাচাই-বাচাই করছি। এর মধ্যে বেশ কয়েকজন ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীও আছে। বিশেষ করে কয়েকজন ককটেলসহ হাতে নাতে ধরা পড়েছে।

জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টির উদ্দেশ্যেই বাস পোড়ানো হয় জানিয়ে তিনি আরো বলেন, রাজনৈতিক পরিচয়ধারী অনেক আসামি রয়েছেন যারা আগেও এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনটা নির্বিঘ্নভাবে সংঘটিত হয়েছে।

সেখানে মানুষের দৃষ্টিকে অন্য দিকে সরানোর চেষ্টা করেছে। শহরে জনমনে আতংক সৃষ্টি করার চেষ্টা করেছে। ডিএমপির মিডিয়া শাখার পরিচালক আরো জানান, বৃহস্পতিবারের ঘটনার পর রাজধানীজুড়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন