গাঁজার নেশা আর পর্নোগ্রাফিতে আসক্তি সমান

গাঁজার নেশা আর পর্নোগ্রাফিতে আসক্তি একই বলে দাবি করছেন একদল চিকিৎসক। তারা ন্যাশনাল ইন্সস্টিটিউট অফ মেন্টাল হেল্থ অ্যান্ড নিউরোসায়েন্সেস এর চিকিৎসক।

তারা বলেন, ‘কোনও যুবক বা যুবতীর মস্তিষ্কে গাঁজার নেশা যে ভাবে প্রভাব ফেলে, একই রকম প্রভাব ফেলে পর্নোগ্রাফিতে প্রবল আসক্তি৷’

গত মার্চে এক ২৩ বছরের যুবকের সন্ধান মিলেছিলো যে কিনা, গত ৩ বছর ধরে দিনে ৬ থেকে ১৫ ঘণ্টা পর্নোগ্রাফি দেখেছিলো৷ চিকিৎসা শুরু করার পর সেই যুবক জানান, তার এক সময় গাঁজার নেশা ছিল৷ সেই নেশা থেকে মুক্তি পেতেই তিনি পর্নোগ্রাফি দেখা শুরু করেন৷ বস্তুত, পর্নোগ্রাফি দেখার সময় তাকে গাঁজার নেশা চেপে ধরত না৷

নিউরোসায়েন্সে’র অধ্যাপক মনোবিদ মনোজকুমার শর্মার বলেন, ‘এই কেসটি আমরা পরীক্ষা করে দেখতে পাই, পর্নোগ্রাফির প্রচণ্ড নেশা ওই যুবকের গাঁজার নেশাকে রুখে দিত। অর্থাৎ‍‌ পর্নোগ্রাফি তার মস্তিষ্কে যে প্রভাব ফেলছে, গাঁজাও সেই রকমই প্রভাব সৃষ্টি করে।’

একইসঙ্গে ডিজিটাল অ্যাডিকশন বা আসক্তির সঙ্গে গাঁজার আসক্তির এই মিল দেখে রীতিমতো অবাক মনোবিদরা।

ফেসবুকে লাইক দিন