কয়েদিরা পাবে ভালো নাস্তা, ভাঙছে দেড়শ বছরের ব্রিটিশ নিয়ম

ইমান২৪.কম: ব্রিটিশরা বাংলা ছেড়েছে গত শতাব্দীর মাঝামাঝি। তারা বাংলা ছাড়লেও রয়ে গেছে তাদের আইন-কানুন। ব্রিটিশ সরকারের নিয়মে প্রায় গত দেড়শ বছর ধরে কয়েদিদের রুটি ও আখের গুড়ের যে সকালের খাবার দেয়া হয়, অবশেষে তার পরিবর্তন আসছে।

গত বছরের মে মাসে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে কারা অধিদপ্তরের পাঠানো এক একটি সুপারিশে সকালের নাস্তায় সপ্তাহের দুই দিন খিচুরি, চার দিন রুটি-সবজি ও বাকি দিনগুলোতে রুটি-হালুয়া পরিবেশনের প্রস্তাব রাখা হয়।

ঔপনিবেশিক শাসকদের ১৮৬৪ সালে বেঙ্গল কারাবিধি অনুসারে কয়েদিদের সকালের নাস্তায় রুটি ও আখের গুড় পরিবেশন করা হচ্ছে জানিয়ে কারা অধিদপ্তরের সহকারী পরিদর্শক আমিরুল ইসলাম গত মঙ্গলবার গণমাধ্যমকে জানান, ‘বহুদিন ধরে সকালের খাবারে পরিবর্তন আনার দাবি জানিয়ে আসছেন কয়েদিরা।

তাদের কথা ভেবেই এ পরিবর্তনের সুপারিশ করা হয়েছে। এখন শুধু ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের অপেক্ষা।’ সরকারের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে আইন ও সালিশ কেন্দ্রের সাবেক পরিচালক নূর খান লিটন বলেন,

‘কারাগারে দর্শক যাচাই ও মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলোর পরিদর্শনের ব্যাপারে ঔপনিবেশিক আমলের দৃষ্টিভঙ্গিতে বড় ধরনের পরিবর্তন আনা দরকার।’ কয়েদিদের সকালের খাবারে পরিবর্তন বাস্তবায়নের জন্য তহবিল বরাদ্দ স্থগিত রয়েছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান,

খাবার পরিবর্তনে অতিরিক্ত ২০ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয় হবে। এই টাকা বরাদ্দ দেয়ার পর কারা অধিদপ্তর দেশজুড়ে ১৩টি কেন্দ্রীয়সহ ৬৪ কারাগারে নতুন তালিকার খাবার পরিবেশন করবে।

আরও পড়ুন: মিয়ানমার সীমান্ত খুলে দেয়ার আহ্বান জানালো জাতিসংঘ

বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে আহমাদ শফীর বিশেষ বার্তা

ফেসবুকে লাইক দিন