কুলাউড়ায় সরকারি বিদ্যালয়ে ইসলাম শিক্ষা পড়ান হিন্দু শিক্ষক

ইমান২৪.কম: মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়ার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হিন্দু শিক্ষকরাই পড়াচ্ছেন ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের সিলেবাসের ধর্ম শিক্ষার বই ইসলাম শিক্ষা।

এতে বিপাকে পড়তে হচ্ছে ছাত্র-শিক্ষক উভয়কে। ফলে মুসলমান ছাত্র-ছাত্রীরা ১০০ নম্বরের আবশ্যক বিষয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

জানা যায়, কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের আমানীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রায় ৬ মাস থেকে ইসলাম ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা বিষয়ের পাঠদান চলছে হিন্দু শিক্ষক দিয়ে।

বিদ্যালয়ে কোন মুসলিম শিক্ষক না থাকায় হিন্দু ধর্মের শিক্ষকরা বাধ্য হয়ে ইসলাম ধর্ম বিষয়ের পাঠদান করতে গিয়ে নিজেরা যেমন বিব্রত, তেমনি শিশু বয়সে ধর্মীয় বিষয়ের প্রকৃত শিক্ষাগ্রহণ থেকে স্কুলের ৯০ ভাগ মুসলিম শিক্ষার্থীর বঞ্চিত হচ্ছে।

এই নিয়ে বিদ্যালয়ের অভিভাবকদের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

আগামী ১৮ নভেম্বর পঞ্চম শ্রেণীর সমাপনী পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। এত কম সময়ে ওই স্কুলের পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা কিভাবে পরীক্ষার শেষ প্রস্তুতি নিবে। এমন প্রশ্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের।

সরেজমিন দেখা যায়, ৫ জন শিক্ষক কর্মরত রয়েছেন, তারা সবাই হিন্দু । আর একটি শিক্ষক পদ শূন্য রয়েছে। সবাই হিন্দু ধর্মাবলম্বী হওয়ায় ৩য় শ্রেণী থেকে ৫ম শ্রেণী পযর্ন্ত ইমলাম ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা বিষয়ের ক্লাস নিতে বাধ্য হন হিন্দু শিক্ষকরা।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রাণ কিশোর ভট্টাচার্য জানান, বিদ্যালয়ের ২০১ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ৯০ ভাগই প্রায় মুসলিম শিক্ষার্থী। চলতি বছরের ১৪ মার্চ থেকে স্কুলে কোন ধর্মীয় শিক্ষক নেই। এতে করে মুসলিম শিক্ষার্থীদের ইসলামী শিক্ষাগ্রহণে ক্ষতি সাধিত হচ্ছে। যা অনাঙ্খাকিত।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আয়ুব উদ্দিন জানান, এই বিষয়টি একদিন আগেই আমাকে জানানো হয়েছে। শিক্ষক পরিবর্তন করার কোন সুযোগ আমার হাতে নেই। শিক্ষক বদলির সুযোগ থাকে বছরের জানুয়ারি-মার্চ মাস পর্যন্ত।

আরও পড়ুনঃ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সিলেটে ১৪২ আসামির মুক্তি

টেন্ডার নিয়ে ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের সংঘর্ষ, আহত ২

ফেসবুকে লাইক দিন