কাশ্মীরে বর্বরতা; রক্তমাখা ও অর্ধনগ্ন মৃতদেহের পায়ে শেকল বেঁধে টেনে নিয়ে গেল বর্বর ভারতীয় সেনারা

ইমান২৪.কম: জম্মু-কাশ্মীরে ভারতীয় সেনাদের বর্বরতা থামছেই না। এবার নতুন করে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। ওই ছবিতে দেখা গেছে, এক বিদ্রোহীর রক্তমাখা ও অর্ধনগ্ন মৃতদেহের পায়ে শেকল বেঁধে টেনে নিয়ে যাচ্ছে ভারতীয় সেনারা।

এ ধরনের কর্মকাণ্ড নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন মানবাধিকারকর্মীরাও। তাদের দাবি, এটি আন্তর্জাতিক মানবিকতা বিষয়ক আইনের লঙ্ঘন।

১৩ সেপ্টেম্বর জম্মুর রিয়াসি এলাকার কাকরিয়াল জঙ্গলে ভারতীয় সেনাদের গুলিতে নিহত হয় তিন বিদ্রোহী। পরে এ ঘটনার একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

সেখানে দেখা যায়, এক বিদ্রোহীর মৃতদেহের পায়ে বেঁধে দড়ি দিয়ে টেনে নিয়ে যাচ্ছে ভারতীয় সেনারা। তার মুখ নিচের দিকে আর পা শিকলে বাঁধা। ছবিটি ছড়িয়ে পড়ার পর তা নিয়ে ভারতীয় সেনাদের বিরুদ্ধে নিন্দার ঝড় ওঠে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের (এইচআরডব্লিউ) দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক পরিচালক মিনাক্ষী গাঙ্গুলি এ ঘটনায় অবিলম্বে তদন্ত শুরুর আহ্বান জানিয়েছেন। নিহত বিদ্রোহীর দেহকে দড়ি দিয়ে বেঁধে টেনে নিয়ে যাওয়াকে মর্যাদাহানিকর কর্মকাণ্ড আখ্যা দিয়েছেন তিনি।

টুইটারে মিনাক্ষী গাঙ্গুলি লিখেছেন, ‘এ থেকে বোঝা যায়, তাদেরকে ভালোভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়নি এবং মানবাধিকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শনে তারা পুরোপুরি ব্যর্থ।’

উল্লেখ্য, জেনেভা কনভেনশন অনুযায়ী, সংঘাতপূর্ণ পরিস্থিতিতে মৃতদেহের অঙ্গহানি নিষিদ্ধ। আর ভারত জেনেভা কনভেনশনে স্বাক্ষরকারী দেশ।

এদিকে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা দাবি করেছেন, বন্দুকযুদ্ধের পর বিদ্রোহীর মৃতদেহ টেনে নিয়ে যাওয়াটা তাদের ‘স্বাভাবিক কার্যক্রম প্রক্রিয়া’।

আরও পড়ুনঃ ভারত ভাগ হওয়ার শঙ্কায় ভারতীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং!

তুরস্কে টানা ৪০দিন ফজরের নামাজ জামাতে পড়ায় সাইকেল পুরস্কার পেল ৫২০ জন শিশু কিশোর

ফেসবুকে লাইক দিন