কঠোর লকডাউনে গরুর হাটে উপচে ভিড়

ইমান২৪.কম: সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে প্রতিদিনই বসছে গরুর হাট। পটুয়াখালীর বিভিন্ন উপজেলায় প্রতিদিন বসছে গরুর হাট।

নাম প্রকাশেন না স্বর্থে একজন ধর্ম প্রাণ মুসমান বলেন, আমরা মুসলমান ইসলামের ভিত্তি পাঁচটি তার মধ্যে কুরবানি একটি গুরুত্ব পূর্ণ একটি ভিত্তি এটা কোন ভাবেই অমান্য করা সম্ভব না। যত কঠিন লকডাউন হোক বা কারফিউ জারি করুক না কেন কুরবানি দিতেই হবে।

সচেতন মহল বলেন, প্রশাসন শুধু মাত্র মেইন সড়কে থাকে সচেতন করছে প্রতন্ত অঞ্চলে প্রশাসন প্রবেশ করেনা। এই সুযোগে তারা সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সামাজিক দুরুত্ব বজায় না রেখে বসাচ্ছে গরুর হাট।

একটি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে প্রতিদিন বসছে গরুর হাট, যেমন গত কালকে কুয়াকাটার পৌর এলাকায়,আজকে দুমকির মৌকণ বাজারে এবং গত পরশু হাট বসছিলো কলাপাড়ার বিভিন্ন স্থানে।পটুয়াখালীর স্থানীয় দৈনিক গণদাবী পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার আব্দুল কাইউম বলেন, প্রতিটি উপজেলায়-ই প্রশাসন চোখ ফাঁকি দিয়ে বসছে গরুর হাট।

পটুয়াখালীর এক গরু খামারি বলেন, আমি কুরবানির জন্য দুইটা পালছি আমার গরু দুইটা এখনো বিক্রি করতে পারিনাই। এই গরু দুইটার পিছনে আমার অনেক টাকা খরচ করতে হয়। গরু যদি বিক্রি করতে না পারি তাহলে আমার বড় ধরনের ক্ষতি হয়ে যাবে। তিনি আরো বলেন, কুরবানির বাকি আছে আর কয়েক দিন এই সময় আমরা খামারিরা চাই হাট গুলো চালু করে দেয়া হোক।

ফেসবুকে লাইক দিন