ওসির অবৈধ সম্পদের রিপোর্ট করায় ৫ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

ইমান২৪.কম: ঢাকার নবাবগঞ্জের ওসি মোস্তফা কামালের অবৈধ সম্পদ অর্জন নিয়ে দৈনিক যুগান্তরের প্রকাশিত প্রতিবেদনের জেরে দৈনিকটির পাঁচ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দোহার থানায় মামলাটি করেন উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. পলাশ মিয়া।

মামলায় দৈনিক যুগান্তরের নবাবগঞ্জ প্রতিনিধি আজহারুল হক, কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি আবু জাফর, আশুলিয়া প্রতিনিধি মো. মেহেদী হাসান মিঠু, ধামরাই প্রতিনিধি শামীম খান এবং গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি এসএম হুমায়ুন কবীরকে আসামি করা হয়েছে।

মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে দোহার থানার ডিউটি অফিসার এএসআই আবু সাঈদ যুগান্তরকে বলেন, ‘মামলার বিষয়ে আমি কিছু জানি না।’

এদিকে মামলার পর যুগান্তরের কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি আবু জাফরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার তাকে গ্রেফতার করে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ।

গ্রেফতার হওয়ার পর থেকেই তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। তবে তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি থানা প্রাঙ্গণে রয়েছে বলে স্বজনরা জানিয়েছেন।

আবু জাফরের স্ত্রী ফাতিমা আক্তার পপি জানান, মঙ্গলবার বিকাল থেকে তার স্বামীর কোনো খোঁজ পাচ্ছিলেন না। তার মুঠোফোনটি বন্ধ রয়েছে। পরে তিনি থানায় জিডি করতে যান। কিন্তু পুলিশ জিডি নিতে অস্বীকৃতি জানায়। এরপর বেরিয়ে আসার সময় থানা প্রাঙ্গণে দেখেন স্বামীর মোটরসাইকেলটি রাখা আছে।

পরে পুলিশ ও স্থানীয় সাংবাদিকদের মাধ্যমে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত হন পপি।

এ বিষয়ে জানতে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ওসি শাহ জামানের মুঠোফোনে যুগান্তরের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে যুগান্তরের পরিচয় পেয়ে তিনি সংযোগটি কেটে দেন।

চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড : ৬৯ জনের মরদেহ উদ্ধার

চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড : ৬৯ জনের মরদেহ উদ্ধার

রাজধানীর চকবাজার এলাকায় কেমিক্যাল গোডাউনে আগুন লেগে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৯ জনে দাঁড়িয়েছে। এ সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। পুড়ে যাওয়া লাশগুলো শনাক্ত করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে। লাশের খোঁজে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালসহ আশপাশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভিড় করছেন স্বজনরা।

এদিকে প্রায় ৫ ঘণ্টা চেষ্টার পর রাত ৩টায় রাজধানীর চকবাজার এলাকায় কেমিক্যাল গোডাউনে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় ফায়ার সার্ভিস। অগ্নিদগ্ধ কমপক্ষে ৪০ জনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়েছে। এখনো অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন।

ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী আহমেদ জানান, ইতিমধ্যে ওই এলাকায় ফায়ার সার্ভিসের একটি অস্থায়ী কমান্ডপোস্ট বসানো হয়েছে। ইতিমধ্যে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। এ পর্যন্ত ৬৯ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৩২টি ইউনিট কাজ করেছে।

কেমিক্যাল গোডাউন ভবনের মালিক লালবাগের সাবেক এমপি হারুন-অর-রশিদের চাচা হাজী আব্দুল ওয়াহেদের বলে জানা গেছে। ভবনটি প্লাস্টিক ও পারফিউমের গুদাম ছিল বলে স্থানীয়রা জানান।

এর আগে রাত সাড়ে ১০টায় শুরু হওয়া আগুন ১টা ৫ মিনিটে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। ভয়াবহ আকারে ছড়িয়ে পড়ে আশপাশের ৫টি বিল্ডিংয়ে।

আরও পড়ুন:  হামলার মহড়া দিতে গিয়ে ভারতের দুই বিমান ধংস

চুপ করে বসে থাকবো না, পাল্টা হামলা চালাব: ইমরান খান

হামলার জবাব দিতে কতটুকু প্রস্তুত ভারতের সেনাবাহিনী?

ভারত-পাকিস্তান সিমান্ত রণসাজে সজ্জিত, ৬০০ ট্যাংক পাঠালো পাকিস্তান

আবারও ব্যাপক সংঘর্ষ কাশ্মীরে, ভারতীয় বাহিনীর মেজর-সহ নিহত ৫

জাপানি নারীর ইসলাম গ্রহণের হৃদয়বিধারক ঘটনা ও পর্দার প্রতি সন্মান

ফেসবুকে লাইক দিন