এবার মুসলিম তরুণীকে হিজাব খুলতে বাধ্য করল মার্কিন পুলিশ

ইমান২৪.কম: মুসলিম আমেরিকান তরুণীকে গ্রেফতার করে জোরপূর্বক হিজাব অপসারণ করতে বাধ্য করেছে মার্কিন পুলিশ।

হিজাববিহীন অবস্থায় তরুণীর স্থির ছবি ধারণ করা হয়েছে। আটককৃত ওই মুসলিম তরুণী বলছেন, তার সাংবিধানিক অধিকার লঙ্ঘন করা হয়েছে। তিনি এই কর্মকাণ্ডে জড়িত কর্মকর্তাদের তদন্তের দাবি জানিয়েছেন।

গত ১০ জুন ফ্লোরিডার মিয়ামিতে ‘ব্ল্যাক লাইভ ম্যাটার’ বিক্ষোভের সময় পুলিশ আলা মাসরি নামের ১৮ বছর বয়সী ওই তরুণীকে গ্রেফতার করে। ‍পুলিশের গুলিতে নিহত কৃষ্ণাঙ্গ ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ চলছে।

মাসরি বলেন, তাকে হাতকড়া দিয়ে মিয়ামি-ডেড কাউন্টি সংশোধন ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। যেখানে তাকে হিজাব খুলতে বাধ্য করা হয়। একইসাথে তার মাথা ঢাকা ছাড়াই তদন্তকালীন ছবি তোলা হয়।

তারপরে তাকে হিজাব ছাড়া সাত ঘণ্টা ওই অবস্থায় বসিয়ে রাখা হয়েছিল। পরবর্তীতে হিজাবিহীন তার ওই ছবিগুলো মিডিয়া ও অনলাইনে প্রকাশিত হয়েছে। এক অনলাইন পিটিশনে মাসরি তার বিরুদ্ধে আনা সমস্ত অভিযোগ প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন।

সেই সাথে তার ওই ছবিগুলো অনলাইন থেকে তুলে নেয়া এবং এ বিষয়ে একটি তদন্ত শুরু করারও দাবি জানিয়েছেন তিনি। ওই পিটিশনটি এ পর্যন্ত প্রায় এক লাখ ৩০ হাজারের বেশি স্বাক্ষর পেয়েছে। মারসির পিটিশনে বলা হয়েছে, আমরা চাই তদন্ত ও দায়বদ্ধতার মধ্যে দিয়ে জনসাধারণের বিরুদ্ধে পুলিশের অনাচারের বিচার হোক।

মিয়ামি-ডেড সংশোধন ও পুনর্বাসন বিভাগ বলেছে, আমরা ব্যক্তির ধর্মীয় বিশ্বাস ও অনুশীলনকে সম্মান করি। আমাদের নীতি ও প্রতিশ্রুতি মেনে আমরা ঘটনাটির পর্যালোচনা করব।

তবে ফ্লোরিডার কাউন্সিল অন আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশনসের (সিএআইআর) স্টাফ অ্যাটর্নি ওমর সালেহ বলেন, পরিচিতি ছবি তোলার জন্য হিজাব খোলার জন্য বাধ্য করায় ধর্মীয় স্বাধীনতার আইন লংঘিত হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, মাসরি চাইলে ওই বিভাগের বিরুদ্ধে দেওয়ানি মামলা দায়ের করতে পারেন। সূত্র : মিডলইস্টআই

ফেসবুকে লাইক দিন