এবার বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে নতুন সিদ্ধান্তে কাকরাইল

ইমান২৪.কম: টঙ্গীর তুরাগ তীরে তাবলিগ জামাত আয়োজিত ২০১৯ সালের বিশ্ব ইজতেমার তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রতি বছরের মতো ২০১৯ সালেও দুই ধাপে অনুষ্ঠিত হবে বিশ্ব ইজতেমা।

তবে এবারের ইজতেমায় দুই পর্বে ৬৪ জেলার মানুষ অংশ নেবেন। কোনো জেলায় আঞ্চলিক কোনো ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে না।

শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর রহিম মেটাল জামে মসজিদে (তেজগাঁও) অনুষ্ঠিত তাবলিগের শুরা সদস্যদের বৈঠকে এ নতুন সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠকে কাকরাইলের মুরুব্বি হজরত মাওলানা জুবায়ের আহমদ, মাওলানা রবিউল হক, মাওলানা ওমর ফারুকসহ ৬৪ জেলার শুরার সদস্যদের নিয়ে বিশেষ পরামর্শ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

নতুন সিদ্ধান্তমতে, ২০১৯ সালের বিশ্ব ইজতেমা শুধু টঙ্গিতে দুই পর্বে সম্পন্ন হবে। প্রতি পর্বে ৩২ জেলার তাবলিগি সাথীরা অংশ নেবেন। প্রথম পর্ব ১৮ জানুয়ারি শুরু হয়ে ২০ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে।

এর চারদিন পর দ্বিতীয় পর্ব ২৫ জানুয়ারি শুরু হয়ে ২৭ জানুয়ারি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে।

উল্লেখ্য, কয়েক বছর ধরে টঙ্গির বিশ্ব ইজতেমা দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। দুই পর্বের বিশ্ব ইজতেমায় ১৬ জেলা করে মোট ৩২ জেলার তাবলিগি সাথীরা অংশ নিয়ে আসছিলেন। বাকী ৩২ জেলায় আঞ্চলিক ইজতেমা অনুষ্ঠিত হতো।

এছাড়া ইজতেমার আগে তিন চিল্লার সাথী ও আলেমদের সমন্বয়ে ৫ দিনের বিশেষ জোড় চলতি বছরের ৭ ডিসেম্বর শুরু ১১ ডিসেম্বর শেষ হবে। পূর্ব রীতি অনুযায়ী বিশেষ জোড়ও টঙ্গিস্থ বিশ্ব ইজতেমার ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে।

প্রসঙ্গত, নতুন এ সিদ্ধান্ত জানানোর জন্য কাকরাইলের পক্ষ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে থানা ও ইউনিয়নে ওয়াজাহাতী জোড় করার ব্যাপারে তাগিদ দেওয়া হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ইজতেমাকে সামনে নিয়ে সারাদেশে মেহনতের উমুমি ফেজা ও সহি রােখ কায়েম করার জন্য বিভিন্ন জেলায় যে ওয়াজাহাতী জোড় হচ্ছে তা থানা ও ইউনিয়নে পর্যায়ে করে সাথীদের জেহেন সাফ করা।

আরও পড়ুনঃ ফিলিস্তিনের ঐতিহাসিক মসজিদকে শরাবখানা বানিয়েছে ইসরায়েল

তুরস্কে এমন একটি বাজার আছে, যেখানে দোয়ার মাধ্যমে শুরু হয় বেচাকেনা

ফেসবুকে লাইক দিন