হামলাকারী কাদিয়ানীদের বিচার না হলে আন্দোলনের দাবানল জ্বলে উঠবে:আল্লামা বাবুনগরী

ইমান২৪.কম: খতমে নবুওয়াত মাদরাসা দখলের উদ্দেশ্যে কাদিয়ানী সন্ত্রাসী কর্তৃক নিরিহ ছাত্রদের ওপর হামলার ঘটনাকে চরম ধৃষ্টতা উল্লেখ করে এর তীব্র নিন্দা ও কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব ও হাটহাজারী মাদরাসার সহযোগী পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

ঘটনা পরবর্তী তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়ে ১৪ই জানুয়ারী মঙ্গলবার রাতে সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে আল্লামা বাবুনগরী বলেন,দখলের উদ্দেশ্যে খতমে নবুওয়াত মাদরাসায় কাদিয়ানীদের হামলার ঘটনা বরদাশত করা হবে না।

অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা চালিয়ে মাদরাসার ছাত্রদেরকে রক্তাক্ত করে চরম দৃষ্টতা আর দুঃসাহস দেখিয়াছে কাফের কাদিয়ানীরা। তিনি বলেন,আমরা দীর্ঘদিন ধরে সুশৃঙ্খলভাবে আকিদায়ে খতমে নবুওয়াত নিয়ে দেশব্যাপী শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করে আসছি।

আমাদের আন্দোলনে কখনো কোন ধরনে বিশৃঙ্খলা ভাংচুর হয়নি।কাফের কাদিয়ানীরা বিনা উস্কানীতে কওমী মাদরাসার নিরিহ ছাত্র ও আলেমদের উপর হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত করে ইতিহাসে একটি কালো অধ্যায়ের সূচনা করেছে।

৯০% মুসলিম অধ্যুষিত দেশে গুটিকয়েক কাদিয়ানী মাদরাসায় হামলা চালিয়ে কোটি কোটি নবীপ্রেমিক তৌহিদী জনতার কলিজায় আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে।দ্রুত সময়ের মধ্যে এ ঘটনার যথাযথ বিচার না হলে পুরো দেশ জুড়ে প্রতিবাদী আন্দোলনের দাবানল জ্বলে উঠতে পারে।

এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে সরকারকেই এর দায়ভার বহন করতে হবে। আল্লামা বাবুনগরী আরো বলেন, ঈমানদার হওয়ার জন্য আকিদায়ে খতমে নবুওয়াত তথা মুহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সর্বশেষ নবী হওয়ার বিশ্বাস স্থাপন করতে হবে।

আকিদায়ে খতমে নবুওয়াত ঈমানের অবিচ্ছেদ্য অংশ। কাদিয়ানীরা খতমে নবুওয়াতকে অস্বীকার করে তাই তারা কাফের৷ মুসলিম নাম ধারণ করে ৯০ শতাংশ মুসলমানের দেশে তাদের ঈমানবিধ্বংসী কোনো কার্যক্রম চলতে পারেনা।

বিশ্বনবী (সা.) এর রিসালতকে অস্বীকারকারী কাদিয়ানী অমুসলিমদের আস্ফালন এদেশের ধর্মপ্রাণ তৌহিদি জনতা মেনে নেবে না।আকিদায়ে খতমে নবুওয়াত ও বিশ্বনবীর ইজ্জত সম্মান রক্ষায় প্রয়োজনে এ দেশের লক্ষ কোটি তৌহিদি জনতা বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিতে প্রস্তুত রয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন