ঈদ শেষে ঢাকায় ফেরা নিয়ে দুশ্চিন্তায় যাত্রীরা

ইমান২৪.কম: লকডাউন শিথিলের ঘোষণায় অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চলাচল শুরু হয়েছে। বাংলাদেশ বিমানসহ দেশীয় বেসরকারি দুটি এয়ারলাইন্স নভোএয়ার ও ইউএস বাংলা ফ্লাইট পরিচালনা করে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের জনসংযোগ শাখার উপ মহাব্যবস্থাপক তাহেরা খন্দকার জানান, আজ বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) সকাল থেকেই বিমান অভ্যন্তরীণ গন্তব্যে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করেছে।

তিনি বলেন, ঢাকা থেকে সকাল সাড়ে ৭টায় সৈয়দপুরে, সকাল ৮টায় চট্টগ্রামে ও যশোরে একটি করে ফ্লাইট গিয়েছে। প্রতিদিন ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে তিনটি, সৈয়দপুরে তিনটি, কক্সবাজারে দুটি, যশোরে দুটি, সিলেটে দুটি, রাজশাহীতে একটি ও বরিশালে একটি করে ফ্লাইট চালাবে বিমান। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ছাড়া্ও দুটি বেসরকারি এয়ারলাইন্স ফ্লাইট চালু করেছে।

এদিকে শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফ্লাইট পরিচালনা করা হচ্ছে। তবে ঈদ শেষে গন্তব্যে ফেরা নিয়ে যাত্রীদের মধ্যে দুশ্চিন্তা রয়েছে। ঈদুল আজহার পরদিন ২৩ জুলাই ফের দেশব্যাপী লকডাউন শুরু হবে। এদিন ভোর ৬টায় ফ্লাইট চলাচল বন্ধ থাকবে। এ খবর শোনার পর ঈদ শেষে ঢাকায় ফেরা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন বিমান যাত্রীরা।

ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের জনসংযোগ শাখার মহাব্যবস্থাপক মো.কামরুল ইসলাম জানান, সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, সিলেট, যশোর, সৈয়দপুরে দুটি করে এবং কক্সবাজার, বরিশাল, রাজশাহীতে একটি করে ফ্লাইট গেছে। চট্টগ্রাম, সিলেট, যশোর, সৈয়দপুর, কক্সবাজার, বরিশাল, রাজশাহী থেকে একটি করে ফ্লাইট ঢাকায় এসেছে। সারা দিনে দেশের বিভিন্ন অভ্যন্তরীণ গন্তব্যে ঢাকা থেকে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের অন্তত ৩২টি ফ্লাইট পরিচালিত হবে বলেও জানান তিনি।

নভোএয়ার থেকে জানানো হয়েছে, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, সৈয়দপুর, যশোর, কক্সবাজার, রাজশাহী ও বরিশালে একটি করে মোট ছয়টি ফ্লাইট পরিচালিত হয়েছে। সারাদিন ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, সৈয়দপুর ও যশোরে ছয়টি করে, বরিশালে চারটি, রাজশাহী তিনটি এবং সিলেট ও কক্সবাজারে দুটি করে ফ্লাইট পরিচালিত হবে।

এদিকে বিমানবন্দরে অভ্যন্তরীণ রুটের যাত্রীরা জানান, ঈদ শেষে মাত্র একদিন (২৩ জুলাই ভোর ৬টা পর্যন্ত) ফ্লাইট চালু থাকবে। এতে করে ফিরতি ফ্লাইটে যাত্রীদের চাপ বাড়বে। এ কারণে ঈদ শেষে ঢাকাসহ অন্যান্য গন্তব্যে ফেরা নিয়ে যাত্রীদের দুশ্চিন্তার কথা সংশ্নিষ্ট এয়ারলাইন্স কর্মকর্তারা জানতে পেরেছেন।

এর আগে ৫ জুলাই এক নির্দেশনায় বেবিচক ৮ জুলাই প্রথম প্রহর থেকে ১৪ জুলাই পর্যন্ত সব ধরনের অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট চলাচল বন্ধ রাখে। ওই সময় আট দেশ থেকে ফ্লাইট আসাও বন্ধ রেখেছিল নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। এর আগে কোভিড-১৯ সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর গত বছর মার্চে দেশে অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক সব রুটে ফ্লাইট চলাচল স্থগিত করে বেবিচক। অবশ্য জুলাই থেকে ধীরে ধীরে খুলতে শুরু করে আকাশপথ। তবে চলতি বছর মার্চ থেকে দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হলে ৫ এপ্রিল থেকে তা আবার বন্ধ করা হয়। পরে ২১ এপ্রিল থেকে ৮ জুলাই তা চালু ছিল।

ফেসবুকে লাইক দিন