‘ইয়াস’; উত্তাল হয়ে উঠেছে বঙ্গোপসাগর, ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে যে ৪ জেলা

ইমান২৪.কম: পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ইয়াস উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর ও আরও ঘনীভূত হয়ে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়ে বর্তমানে একই এলাকায় অবস্থান করছে। আজ মঙ্গলবার (২৫ মে) ভোরে ইয়াস সম্পর্কিত ৯ নম্বর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

জানা গেছে, আগামীকাল বুধবার দুপুর নাগাদ ভারতে আছড়ে পড়তে পারে ঘূর্ণিঝড়টি। সেই সময় ঘণ্টায় ১৫৫ থেকে ১৬৫ কিলোমিটার বেগে বইবে ঝড়। কখনও কখনও ঝড়ের বেগ ঘণ্টায় ১৮৫ কিলোমিটার পর্যন্ত পৌঁছে যেতে পারে। এদিকে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব বঙ্গোপসাগর উপকূলে পড়তে শুরু করেছে। জোয়ারের চেয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে পানি। উত্তাল হয়ে উঠেছে সমুদ্র উপকূল।

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়বে খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট ও বরগুনা জেলায়। গতিপথ পরিবর্তন করায় এসব এলাকার উপর দিয়ে ঝড় বয়ে না গেলেও দমকা হাওয়াসহ প্রচুর বৃষ্টিপাত হতে পারে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে এই চার উপকূলীয় এলাকা। এদিকে, অনুকূল আবহাওয়া পরিস্থিতির কারণে ঘূর্ণিঝড়টি আরও ঘনীভূত হয়ে আরও উত্তর-উত্তর পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

এদিকে ইয়াস মোকাবিলায় উপকূলীয় অঞ্চলে নেয়া হচ্ছে ব্যাপক প্রস্তুতি। ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলার উপকূলবর্তী মানুষদের নিরাপদ আশ্রয়ে নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। সেইসঙ্গে উপকূলের বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান বন্ধ করা হচ্ছে। বন্ধ হচ্ছে হোটেল-মোটেলগুলোও।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বুধবার দুপুরে অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়ে ওড়িশার বালেশ্বরের কাছ দিয়ে অতিক্রম করতে পারে ইয়াস। ইয়াসের প্রভাবে সোমবার সন্ধ্যা থেকে পশ্চিমবঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি শুরু হয়েছে। আজও রাজ্যের উপকূলবর্তী পূর্ব মেদেনীপূর, পশ্চিম মেদেনীপুর কলকাতা হাওড়সেহ বিভিন্ন এলাকায় অতিভারি বৃষ্টি হতে পারে। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় সব রকমের প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার।

ফেসবুকে লাইক দিন