টোল দিতে দেরি হওয়ায় দাড়ি ছিঁড়ে নেওয়া হলো নছিমন চালকের

ইমান২৪.কম: খুলনার কয়রা সেতুতে টোলের টাকা দিতে দেরি করায় এক নছিমন চালকের দাড়ি ছিঁড়ে নেওয়া হয়েছে। চালকের নাম রেজাউল বিশ্বাস। শুক্রবার সকালে তিনি কয়রা থেকে মালপত্র নিয়ে আমাদি বাজারে যাওয়ার পথে সেতুর টোল প্লাজায় এ ঘটনা ঘটে।

রেজাউল বিশ্বাস অভিযোগ করে বলেন, প্রতিদিন তিনি এ সেতু দিয়ে মালপত্র পরিবহন করে থাকেন। নিয়ম অনুযায়ী তার টোল ১০ টাকা হওয়ার কথা থাকলেও প্রতিবার ৩০ টাকা নেওয়া হয়। ওইদিন নছিমনে মালপত্র বেশি থাকায় টোলঘর ছাড়িয়ে তিনি সেতুর ওপর উঠে যান। সেখানে থামলেই টোল আদায়কারীরা দৌড়ে গিয়ে তাকে মারধর শুরু করেন।

একপর্যায়ে তার দাড়ি টেনে ছিঁড়ে ফেলেন। এ সময় তার চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করেন। তিনি আরও বলেন, এ সময় তার কাছে থাকা টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেন তারা। পরে মোবাইল ফেরত দিলেও ১৬০ টাকা দেননি।\হপ্রত্যক্ষদর্শী নজরুল ইসলাম বলেন, ‘টোলঘর থেকে একটু দূরে নছিমন রেখে তিনি এগিয়ে আসছিলেন।

তবে তারা ভেবেছেন, হয়তো নজরুল পালিয়ে যাচ্ছেন। এ সময় তার ওপর হামলা করেন তারা। এতে তার দাড়ি ছিঁড়ে যায়।’ ওই পথে চলাচলকারী অনেকেই অভিযোগ করেন, সেখানে নির্ধারিত টোলের কয়েক গুণ বেশি টাকা আদায় করেন অর্থ আদায়কারীরা। এতে প্রতিবাদ করলে দুর্ব্যবহার করেন তারা। এ বিষয়ে জনপ্রতিনিধিদের কাছে অভিযোগ দিয়েও কোনো লাভ হয় না।

ওই সেতু দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে নিয়মিত চলাচলকারী শহিদুল ইসলাম বলেন, সেতুতে চলাচলের জন্য মোটরসাইকেলের টোল পাঁচ টাকা হলেও তারা ১০ টাকা আদায় করেন। এখানে টোল আদায়ের নামে এক ধরনের চাঁদাবাজি হয় সেখানে। সেতুর ইজারাদার মিনারুল ইসলাম জানান, ঘটনার বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। যদি এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকে, সেটা অবশ্যই দুঃখজনক।

ফেসবুকে লাইক দিন