ইসরায়েল-ইরান যুদ্ধ: ভয়ঙ্কর রূপ নিচ্ছে সিরিয়ায়

ইতিমধ্যে ইসরায়েল সিরিয়ার ভেতরে থাকা ইরানী অবস্থানগুলোর ওপর অনেকগুলো বিমান হামলা চালিয়েছে। ইসরায়েল বলছে, তারা অনেকগুলো ইরানী লক্ষ্যবস্তুর ওপর হামলা চালিয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে সিরিয়ার অভ্যন্তরে থাকা অস্ত্রের গুদাম, ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণস্থল এবং গোয়েন্দা কেন্দ্র।

ইসরায়েল আরো বলেছে, সিরিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার ওপরও হামলা চালানো হয়, কারণ ইসরায়েলের ভাষায় তারা সতর্ক করে দেয়া সত্বেও গুলিবর্ষণ করেছিল।

ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী এভিগডর লিবারম্যান বলেছে, সিরিয়ার ভেতরে ইরানের যতগুলো স্থাপনা ছিল তার প্রায় সবগুলোতেই আঘাত হেনেছে দেশের সামরিক বাহিনী ।

সিরিয়ার বিভিন্ন মিডিয়া সূত্রে জানা গেছে, ইসরায়েলের এসব হামলায় কমপক্ষে ২৩ জন নিহত হয়েছে।

এদিকে সিরিয়ান রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম বলেছে, কিছু ইসরায়েলি ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকিয়ে দেয়া হয়েছে। দামেস্কের অধিবাসীরা শহরের আকাশে অনেকগুলো বিস্ফোরণ ঘটতে দেখেছেন বলে জানিয়েছেন।

ইসরায়েল জানিয়েছে, তাদের যুদ্ধবিমানগুলো সব নিরাপদে ঘাঁটিতে ফিরে এসেছে।

ইসরায়েল বলছে, গোলান মালভূমি এলাকায় তাদের সামরিক ফাঁড়িগুলোর ওপর ইরানী বিপ্লবী গার্ডের শাখা কুদস বাহিনী অন্তত ২০টি রকেট হামলা চালানোর পর তার জবাবেই তারা এই হামলা চালিয়েছে।

ইসরায়েল মনে করে ইরান তাদের অন্যতম শত্রু। কিছুদিন আগে থেকেই ইসরায়েল হুমকি দিয়ে আসছে যে সিরিয়ার ভেতরে ইরানকে তাদের অবস্থান পাকাপোক্ত করতে দেয়া হবে না।

তবে ইরানের পক্ষ থেকে এসব হামলার ব্যাপারে এখনো কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি। সিরিয়ায় প্রেসিডেন্ট বাশার আসাদকে সাহায্য করতেই ইরান সেদেশে সৈন্য পাঠিয়েছে।

যুক্তরাজ্য ভিত্তিক সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস নিশ্চিত করেছে, কুনেইত্রা প্রদেশ এবং দামেস্কের দক্ষিণ-পশ্চিম দিকের গ্রামগুলো থেকে অনেকগুলো রকেট নিক্ষেপ করা হয়, অধিকৃত গোলান এলাকা লক্ষ্য করে। কিন্তু কারা ওই রকেট হামলা চালায় তা নিশ্চিত করতে পাারেেনি এই সংস্থাটি। তবে সংস্থাটি বলেছে যে ইসরায়েলি বাহিনী বাথ নামক একটি সিরিয়া নিয়ন্ত্রিত শহরে বোমাবর্ষণের পর ওই রকেট হামলা চালানো হয়।

ইরানী নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের একটি সূত্র এএফপিকে বলেছেন, ইসরায়েলি বাহিনীই প্রথম গোলাগুলি শুরু করে।

সিরিয়ার ভেতরে থাকার ইরানের বিভিন্ন স্থাপনার ওপর এর আগে একাধিক বিমান হামলা চালানো হয়েছে, যেগুলো ইসরায়েলই চালিয়েছে বলে মনে করা হয়। এপ্রিল মাসে একটি বিমানঘাঁটিতে এক হামলায় সাত জন ইরানী বিপ্লবী গার্ড নিহত হয়।

আরও পরুনঃ আমেরিকা যুদ্ধ ছেড়ে আফগানিস্তান থেকে যেতেও পারছেনা, জিততেও পারছেনা

ফেসবুকে লাইক দিন