উত্তম কুমারের নেতৃত্বে দাঁড়ি রাখা কর্মীদের ছাঁটাই করছে ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল

ইমান২৪.কম: ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল নামক ঔষধ কোম্পানির বরিশালের এসিস্ট্যান্ট সেলস ম্যানেজার উত্তম কুমার শীল তার নিয়ন্ত্রণে চাকরি করা সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দাঁড়ি রাখার কারণে চাকরিচ্যুত করতে চলেছেন।

ইতিমধ্যে অনেককেই চাকরি থেকে অব্যহতি নিতে বাধ্য করেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রতিষ্ঠানের অনেকেই এই অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ইসলামী বিধান দাঁড়ি রেখে অনেকেই এখন চাকরি হারানোর ভয়ে রয়েছেন।

যেটা রীতিমত ইসলামের উপর চপেটাঘাত। সরেজমিনে কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারীর সাথে কথা বলে বরিশাল ক্রাইম নিউজ বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে। ভুক্তভোগী এক কর্মকর্তাকে দাঁড়ি রাখার অপরাধে গত দুইদিন আগে চাকরি থেকে অব্যহতি নিতে বাধ্য করেছেন এই অফিসার।

ভুক্তভোগী কর্মকর্তা তার কাছে জোরালো অনুরোধ করেছেন, অন্তত চলতি মাসটা যেন সে থাকতে পারেন। যাতে ঐ কর্মকর্তা চলতি মাসের বেতনটা অন্তত নিয়ে যেতে পারেন। কিছুতেই তার মন গলাতে পারেননি। এ যেন মরার উপরে খরার ঘা।

একদিকে বৈশ্বিক মহামারী করোনার কারণে প্রত্যেক কর্মকর্তা-কর্মচারী চাকরি নিয়ে চিন্তিত, তার মধ্যে এমন একটি অমানবিক এবং বেআইনি সিদ্ধান্ত তাদের পেটে লাথি মারার মত পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে।

বরিশাল অঞ্চলের দূরদূরান্তে চাকরি করা ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল ঔষধ কোম্পানির দাঁড়ি রাখা সকল কর্মীরা এখন চাকরি হারানোর আতংকে দিন পার করছেন। তার কথামতো যে বা যাহারা দাঁড়ি কেটে ফেলেছেন, তাদের কোন সমস্যা নেই।

একজন কর্মকর্তা সম্প্রতি পবিত্র হজ্জ পালন করেছেন। পরিবার পরিজন নিয়ে দুটো ডাল ভাত খেয়ে বেঁচে থাকার তাগিদে উত্তম কুমারের কথামতো দাঁড়ি কেটে ফেলতে বাধ্য হয়েছেন। নব্বই শতাংশ মুসলিম প্রধান দেশে এমন বেআইনি কাজ করতে উত্তম কুমার কিভাবে এমন সাহস পান এমন প্রশ্ন ঔষধ কোম্পানির সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের মুখেমুখে।

তারা সকলে সরকার এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন, এই উত্তম কুমারের বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে উত্তম কুমার শীলের সাথে কথা হলে বিষয়টি অস্বীকার করে তার দুজন স্টাফকে পাঠান কিছু অর্থ দিয়ে যেনো নিউজটি প্রকাশ করা না হয়।

ফেসবুকে লাইক দিন