বাবুনগরীসহ আলেমদের বিরুদ্ধে মামলা অশনি সংকেত: হেফাজতে ইসলাম

ইমান২৪.কম: হেফাজতে ইসলামের আমির শায়খুল হাদিস আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী ও যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক এবং মাওলানা মুফতি ফয়জুল করীমের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম।

হেফাজতে ইসলামের পক্ষে সাংগঠনিক সম্পাদক আল্লামা আজিজুল হক ইসলামাবাদী সোমবার রাতে এক বিবৃতিতে বলেন, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ নামে একটি ভূঁইফোড় সংগঠন কর্তৃক মামলা অশনি সঙ্কেত।

অশুভ শক্তি দেশের শান্তিপ্রিয় আলেম সমাজকে সরকারের মুখোমুখি করে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তারা আলেম সমাজ ও ধর্মপ্রাণ জনসাধারণকে উস্কানি দিয়ে দেশকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিতে চায়। তিনি প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অশুভ শক্তির দ্বারা প্ররোচিত হবেন না।

আজিজুল হক ইসলামাবাদী বলেন, তারা প্রথমে হুমকি-ধমকি এবং মাহফিলে বাধা দিয়ে উলামায়ে কেরামকে স্তব্ধ করতে না পেরে এখন মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির পথ বেছে নিয়েছে। বর্তমান হেফাজতের নেতৃত্বাধীন ওলামায়ে কেরামকে মামলা দিয়ে স্তব্ধ করা যাবে না।

মামলার বাদী মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ সম্পর্কে মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী বলেন, সাম্প্রতিক অতীতে বিভিন্ন ছাত্র-আন্দোলনের সময় সংগঠনটি আন্দোলনরত নিরীহ ছাত্রদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে বিতর্কিত ও প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। এই সংগঠন কর্তৃক উলামায়ে কেরামের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহী মামলাকে আমরা বাংলাদেশ-বিরোধী ব্রাহ্মণ্যবাদী চক্রান্তের অংশ মনে করি। তিনি বলেন, সরকারের সাথে শত্রুতামূলক আচরণ করা আমাদের উদ্দেশ্য নয়। কিন্তু ইসলামবিদ্বেষী উগ্র সেক্যুলার গোষ্ঠী সরকারকে ভুল প্ররোচনা দিচ্ছে।

সেইসাথে সরকারদলীয় সংগঠনগুলোর কতিপয় নেতা উলামায়ে কেরামের বিরুদ্ধে অশোভন ও বেয়াদবিমূলক এবং অশ্লীল ভাষায় বক্তব্য ও উস্কানি দিচ্ছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান করছি, কোন ষড়যন্ত্রকারী মহল যেন রাজনৈতিক উস্কানী দিয়ে দেশের শান্তি শৃঙ্খলা ও স্থিতিশীলতা বিনষ্ট করার সুযোগ না পায়।

আপনার সঠিক ও দূরদর্শী নির্দেশনা দেশকে সংঘাতের পথ থেকে রক্ষা করতে পারে। আমরা আশা করি সরকার এমন কোন হঠকারী সিদ্ধান্ত নিবেন না, যাতে সরকারের সাথে উলামায়ে কেরামের সম্পর্ক চরম শত্রুতার পর্যায়ে নিয়ে যায়।

মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী আরো বলেন, ‘আল্লাহ ও তার রাসূল (সা.)-এর সুস্পষ্ট নির্দেশনার বিরুদ্ধে গিয়ে ভাস্কর্য বানিয়ে কবরে শায়িত বঙ্গবন্ধুকে আযাবের সম্মুখীন করবেন না। আমরা নান্দনিকতা, শিল্পকলা ও স্থাপত্যকলার বিরুদ্ধে নই’।

তবে প্রাণী বা মনুষ্য ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে, যা ইসলাম সর্বক্ষেত্রে সুস্পষ্টভাবে নিষিদ্ধ করেছে। এ বিষয়ে আলেমদের মধ্যেও কোনো মতান্তর নেই। সরকারকে ভাস্কর্য বিষয়ে দেশের শীর্ষ উলামায়ে কেরামের বক্তব্য ও ফতোয়া ভালোভাবে পড়ে অনুধাবন করার আহ্বান জানান তিনি।

ফেসবুকে লাইক দিন