ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিষয়টি বিবেচনা করছে সরকার: আইনমন্ত্রী

ইমান২৪.কম: আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানিয়েছেন, ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তিযাবজ্জীন থেকে বাড়িয়ে মৃত্যুদণ্ড করার বিষয়টি জন দাবির প্রেক্ষিতে বিবেচনা করছে সরকার।

আজ বুধবার (৭ অক্টোবর) সকালে নিজ বাসা থেকে সচিবালয়ের উদ্দেশে বের হওয়ার পর সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘যেহেতু জনগণের পক্ষ থেকে দাবি উঠেছে, ধর্ষণের শাস্তি যাবজীবন থেকে বাড়িয়ে মৃত্যুদণ্ড করার।

সেহেতু এটা সরকার সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করছে। কারণ আইন মানুষের জন্য।’

আরো পড়ুন>> সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে পবিত্র ওমরাহ পালনের অনুমতির বিষয়ে এখনো পর্যন্ত কোনো চিঠি ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় পায়নি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে ওমরাহ পালনের সুযোগ করে দেওয়ার প্রচারণার বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দিয়েছে মন্ত্রণালয়।

গতকাল মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসাইন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তাতে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯-এর কারণে রাজকীয় সৌদি সরকার থেকে পবিত্র ওমরাহ পালনের কোনো আনুষ্ঠানিক পত্র এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। তা সত্ত্বেও কতিপয় ব্যক্তি ও কিছু এজেন্সি ফেসবুক বা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নির্দিষ্ট দিন উল্লেখ করে পবিত্র ওমরাহ পালনের বিজ্ঞাপন দিচ্ছে।

এতে ধর্মপ্রাণ সাধারণ মুসলিম জনসাধারণের প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এরইমধ্যে এ ধরনের কর্মকাণ্ডের কারণে বিধিমতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, রাজকীয় সৌদি সরকার থেকে পবিত্র ওমরাহ পালনের অনুমতি পাওয়া সাপেক্ষে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে।

তার আগে এজেন্সি বা ব্যক্তিকে এ ধরনের প্রচারণা থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। পাশাপাশি ওমরাহ গমনেচ্ছুদের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ঘোষণার আগে কারো সঙ্গে এ সংক্রান্ত লেনদেন না করার জন্যও অনুরোধ করা হয়।

ফেসবুকে লাইক দিন