ঘর আলো করে এল প্রথম সন্তান, বাবা ফিরলেন লাশ হয়ে

ইমান২৪.কম: ইজিবাইক চালক মিনহাজ আলী শেখ (২৩) কে বগুড়ার ধুনটে ধানক্ষেত থেকে মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) সকালে নিখোঁজের প্রায় ৪০ ঘণ্টা পর উপজেলার জোড়গাছা গ্রাম থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

এদিকে বুধবার (৩০ সেপ্টেস্বর) ইজিবাইক চালক মিনহাজ আলী শেখের ঘর আলো করে এসেছে তার প্রথম সন্তান। সন্তানের মুখ দেখা হলো না তার। নিহত মিনহাজ ধুনট উপজেলার বিশ্ব হরিগাছা গ্রামের মোজদার হোসেনের ছেলে।

এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ধুনট উপজেলার বহালগাছা গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে ফজলে রাব্বীকে (২৪) আটক করেছে পুলিশ। জানা গেছে, গত ২৯ সেপ্টেম্বর বিকেলে ফজলে রাব্বী শেরপুর যাওয়ার কথা বলে ধুনট থেকে মিনহাজের অটোরিকশা ভাড়া করেন।

এরপর থেকে মিনহাজ নিখোঁজ হন। ৩০ সেপ্টেম্বর সকালে শেরপুর উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের আওলাকান্দি গ্রামের রাস্তায় একটি অটোরিকশা পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ অটোরিকশাটি থানায় নিয়ে আসে।

ওই দিন বিকেলে ফজলে রাব্বী শেরপুর থানায় হাজির হয়ে পুলিশকে জানান, তিনি মিনহাজের অটোরিকশা ভাড়া করেছিলেন। রাতে জোরগাছা গ্রামে ছিনতাইকারীরা তাকে ছুরিকাঘাত করে অটোরিকশাসহ চালক মিনহাজকে নিয়ে যান।

ফজলে রাব্বীর পায়ের তালুতে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন দেখে পুলিশের সন্দেহ হয়। পরে তাকে আটক করে রাতে জিজ্ঞাসাবাদ করলে মিনহাজকে হত্যার কথা স্বীকার করেন ফজলে রাব্বী। পরে ফজলে রাব্বীকে সঙ্গে নিয়ে জোড়গাছা গ্রামের ধানক্ষেত থেকে মিনহাজের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

শেরপুর থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, আটক ফজলে রাব্বীর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তল্লাশি চালিয়ে মিনহাজের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে মিনহাজের মরদেহ তার পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন