ইমরানকে ২ হাজার কোটি ডলার দিচ্ছে সৌদি যুবরাজ

ইমান২৪.কম: সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান তার পাকিস্তান সফরের প্রথম দিনে সে দেশের সঙ্গে দুই হাজার কোটি ডলারের বিনিয়োগ চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছেন ।

রোববার দু দিনের সফরে ইসলামাবাদ পৌঁছুলে সৌদি যুবরাজকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। পরে দুই নেতা সরাসরি পেট্রো কেমিক্যালস, বিদ্যুৎ, খনি সম্পদ, ক্রিড়া ও অন্যান্য বিষয়ে সরাসরি আলোচনা করেন। এরপর দুই দেশের মধ্যে ওই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

যুবরাজ সালমান এমন এক সময়ে এই চুক্তি করলেন যখন তীব্র আর্থিক সমস্যা মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছেন সে দেশের নতুন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

ইতিমধ্যে কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলার জের ধরে ইসলামাবাদের ওপর থেকে মোস্ট ফেভারড নেশন’-এর (এমএফএন) মর্যাদা প্রত্যাহার করেছে ভারত। একই সঙ্গে পাকিস্তান থেকে আসা সব পণ্যের ওপর ২০০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করেছে নয়াদিল্লি। এ অবস্থায় সৌদি আরবের এই অর্থ সহায়তা ইসলামাবাদ সরকারকে সঙ্কট উত্তরণে সহায়তা করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ চুক্তির আওতায় পাকিস্তানের বন্দর নগরী গোয়াদারে ৮০০ কোটি ডলার বিনিয়োগে একটি তেল শোধনাগার তৈরি হবে। এ ছাড়া দুই দেশের মধ্যে বেশ কয়েকটি জ্বালানি, পেট্রোকেমিক্যাল ও খনি খাত সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

চুক্তি স্বাক্ষরের পর এক বিবৃতিতে সৌদি যুবরাজ বলেন, ‘এটি দুই পক্ষের জন্য একটি বড় অধ্যায়। অবশ্যই এটি প্রতি মাসে এবং প্রতি বছর বৃদ্ধি পাবে। এর মাধ্যমে দুই দেশই উপকৃত হবে।’

পাকিস্তানকে ‘ডিয়ার কান্ট্রি’ হিসেবে সম্বোধন করে সৌদি যুবরাজ আরো বলেন, ‘আমার বিশ্বাস অদূর ভবিষ্যতে পাকিস্তান অতি গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রে হিসেবে আবির্ভুত হতে যাচ্ছে। আমরা দেশটির এই সাফল্যের অংশ হতে চাই।’

পাকিস্তানের বিপদের দিনে এভাবে সহায়তা করায় সৌদি যুবরাজকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, ‘পাকিস্তানের জন্য আজ একটি মহান দিন। আমাদের প্রয়োজনে সবসময় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে সৌদি আরব। তাই আমরা তাদের গুরুত্ব দেই।’

প্রসঙ্গত, বর্তমানে তারল্য সংকটে জর্জরিত পাকিস্তান। দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকে রিজার্ভের পরিমাণ মাত্র ৮ বিলিয়ন ডলার। এমন অবস্থায় এই চুক্তির মাধ্যমে সংকট উত্তরণে কিছুটা সমর্থ হবে পাকিস্তান এমনটাই আশা করছেন বিশ্লেষকেরা।

গত বছরের আগস্টে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়েই ইমরান দেখেন রাজকোষ প্রায় শূন্য। বিদেশি সহায়তা পেতে মরিয়া ইমরান পাকিস্তানের বেশির ভাগ প্রধানমন্ত্রীর মতো তার প্রথম বিদেশ সফর হিসেবে বেছে নেন সৌদি আরবকে। সৌদি আরবও তাকে নিরাশ করেনি। ৬০০ কোটি ডলারের সহায়তা প্যাকেজ দেয় ইমরানকে।

যুবরাজ সালমান তার দীর্ঘ এশিয়া সফরের প্রথম পর্যায়ে পাকিস্তান রয়েছেন। এখান থেকে তিনি একে একে মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ভারত ও চীন সফরে যাবেন।

২০১৭ সালের জুলাইয়ে সৌদি যুবরাজ হিসেবে অভিষেক হওয়ার পর এটিই হচ্ছে তার প্রথম এশিয়া সফর।

আরও পড়ুন:  এবার পাক সেনা বহরে আত্মঘাতী হামলা, নিহত ৯

হামলার জবাব দিতে কতটুকু প্রস্তুত ভারতের সেনাবাহিনী?

ভারত-পাকিস্তান সিমান্ত রণসাজে সজ্জিত, ৬০০ ট্যাংক পাঠালো পাকিস্তান

আবারও ব্যাপক সংঘর্ষ কাশ্মীরে, ভারতীয় বাহিনীর মেজর-সহ নিহত ৫

ভারতের পাশে যুক্তরাষ্ট্র-ইসরায়েল, পাকিস্তানের পক্ষে চীন

আমার মনে হয়েছে আমি জাহান্নামে ছিলাম : চীনা বন্দিশিবির থেকে ফিরে এক নারী

ফেসবুকে লাইক দিন