আসামি ধরতে গিয়ে নদীতে ঝাপ : ২০ ঘণ্টা পর পুলিশের লাশ উদ্ধার

আসামিকে ধরতে গিয়ে নদীতে নিখোঁজ হওয়া পুলিশ সদস্যের লাশ উদ্ধার। আজ দুপুর দেরটায় ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল পুলিশ সদস্য শাহীনুরের লাশ উদ্ধার করে।

শাহীনুর রহমান মানিকগঞ্জ সদর থানায় কর্মরত ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি ঢাকার আশুলিয়ার গোয়াইলবাড়িতে।তিনি গাজীপুর জেলার গোহাইল গ্রামের অহিদুর রহমানের ছেলে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার জয়নগর এলাকায় কালীগঙ্গা নদীতে শাহীনুর নিখোঁজ হন।

সালাম নামে এক আসামি গ্রেফতার হওয়ার পর পুলিশকে ফাঁকি দিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় পুলিশ সদস্য শাহীনুর ধাওয়া করলে নদীতে ঝাঁপ দেয় সালাম। তাকে ধরতে পুলিশ সদস্য শাহীনুরও নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এতে আসামি নদী থেকে উঠে পালিয়ে গেলেও পুলিশ সদস্য শাহীনুর নিখোঁজ হন।
আসামি সালামের গ্রামের বাড়ি মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার পূর্ব গিলন্ড গ্রামে।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস বিভাগের ডুবুরির দল রাত সাড়ে ১০টা থেকে তিনটা পর্যন্ত উদ্ধার তৎপরতা চালায়। পরদিন সকাল ৮টার দিকে ডুবুরি দল আবারও উদ্ধারকাজ শুরু করে। দুপুর দেড়টার দিকে নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার হয়।

নিখোঁজের ২০ ঘণ্টা পর আজ তার লাশ উদ্ধার করা হল।

ওসি রকিবুজ্জামান বলেন, “তারা সাদা পোশাকে আসামি ধরতে গিয়েছিলেন। শাহিনূর যেখানে নিঁখোঁজ হন সেখান থেকেই ডুবুরিরা তার লাশ উদ্ধার করেন। যে পোশাক পরা ছিল সেই পোশাক পরা অবস্থায়ই লাশ পাওয়া গেছে।”

শাহিনূর সাঁতার জানতেন বলে তিনি নিশ্চিত করেছেন। তবে চিকিৎসক মৃত্যুর কারণ জানাতে পারেননি।

মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালের চিকিৎসক লুৎফর রহমান বলেন, “তার শরীরের কোথাও কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। মৃত্যুর কারণ অনুমান করার মত কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। ময়নাতদন্ত শেষে কারণ জানা যাবে।”

ফেসবুকে লাইক দিন