আমরা কাউকে বেদাতি/কাফের বলে গালি দিবোনা: মাও. খালেদ সাইফুল্লাহ্ আইয়ূবী

জামিয়া দারুল উলূম মুহিউস্ সুন্নাহ্ করিমপুর মুরাদনগর, কুমিল্লা এর মাসিক ইসলাহী মাহ্ফিলে  সুন্নাতী জিন্দেগী নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ আত্মশুদ্ধি মূলক আলোচনা করেন মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ্ আইয়ূবী দা.বা.।

মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ্ আইয়ূবী দা.বা. বলেন আমরা কাউকে বেদাতি/কাফের ইত্যাদি বলে গালি দিবোনা। আমরা চাই হেদায়াত, কারণ মুসলমান মুসলমানের ভাই। গালাগালি করে কি লাভ? যখন কোন বান্দার অন্তরে দ্বীনের সহিহ্ বুজ এসে যায়,তখন সে সকল প্রকার গোমরাহি থেকে ফিরে সহিহ্ পথে চলে আসে। কারণ দ্বীনের সহিহ্ বুঝ হলো একটি আলোর মতো, আর গোমরাহি হলো অন্ধকার।

যখন কারো অন্তরে দ্বীনের আলো এসে যাবে তখন তার অন্তর থেকে গোমরাহির অন্ধকার দূর হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ্। আর এই আলোর সন্ধান পাওয়ার একমাত্র স্থান হলো উলামাদের মজলিশ, যেখানে হেদায়েতের পথের সন্ধান মিলে। আলহামদুলিল্লাহ্‌ ইসলাহী মজলিশ গুলোতে সুন্নতে নববীর শিক্ষা দেওয়া হয়।

মাহ্ফিল অনুষ্ঠিত হয় গতকাল ২৬’এপ্রিল রোজ বৃষ্পতিবার দিবাগত রাতে।

উক্ত ইসলাহী মাহ্ফিলে মুসলিম উম্মাহর ইসলাহের উদ্যেশ্যে
আরো বয়ান করেন মুফতি দ্বীন মোহাম্মদ আশরাফ -শায়খুল হাদীস প্রিন্সিপাল, জামিয়া দারুল উলূম মুহিউস্ সুন্নাহ্ করিমপুর।

মাও.আনিসুর রহমান আশরাফি,
প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মাদরাসায়ে আশরাফুল উলূম ময়নামতি, কুমিল্লা

মুফতি মানসুর কবির,
শিক্ষাসচিব, জামিয়া দারুল উলূম মুহিউস্ সুন্নাহ্ করিমপুর।

আরো উপস্থিত ছিলেন বহু আলেম উলামা মাদরাসার ছাত্র শিক্ষক বৃন্দ ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানগণ

 

ফেসবুকে লাইক দিন