আব্দুল কুদ্দুসের অনিয়ম তদন্তে গঠিত কমিটিতে রয়েছেন যারা

ইমান২৪.কম: কওমী মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়ার মহাসচিব ও ফরিদাবাদ মাদরাসার মুহতামীম মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস এবং বহিস্কৃত সাবেক পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাওলানা আবু ইউসুফের মাঝে ঘটিত ফাঁস হওয়া ফোনালাপ ও নানা অনিয়মের স্বরূপ সন্ধানের জন্য ৬ সদস্যের উচ্চতর তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বেফাকের খাস কমিটি।

রোববার (১৬ আগস্ট) দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার মুহতামীম আল্লামা শাহ আহমদ শফীর কার্যালয়ে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে।

সূত্রের তথ্যমতে, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস ও বহিস্কৃত সাবেক পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাওলানা আবু ইউসুফের মাঝে ঘটিত ফাঁস হওয়া ফোনালাপ এবং নানা অনিয়মের স্বরূপ সন্ধানের জন্য গঠিত তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক মুফতী জসিম উদ্দিন।

সূত্রের তথ্যমতে, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস ও বহিস্কৃত সাবেক পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাওলানা আবু ইউসুফের মাঝে ঘটিত ফাঁস হওয়া ফোনালাপ এবং নানা অনিয়মের স্বরূপ সন্ধানের জন্য গঠিত তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে আছেন দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার শিক্ষক মুফতী জসিম উদ্দিন।

সদস্য হিসেবে থাকছেন, উচ্চতর ইসলামি শিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান মারকাযুদ দাওয়াহ আল ইসলামিয়ার শিক্ষাসচিব মাওলানা মুহাম্মাদ আব্দুল মালেক, জামিআ রাহমানিয়া আরাবিয়া আলি এন্ড নূর রিয়েল স্টেট মাদরাসার ইফতা বিভাগের প্রধান মুফতি মনসুরুল হক, মিরপুর আকবর কমপ্লেক্ম মাদরাসার মুহতামীম মুফতী দেলওয়ার হোসাইন,

আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া দারুল উলুম বরুড়া মাদরাসার মুহতামীম মুফতী নোমান আহমদ। তদন্ত কমিটিকে সহযোগিতা করবেন বেফাকের মহাপরিচালক মাওলানা মুহাম্মাদ যোবায়ের। অনিয়ম উদ্ঘাটনে মনোনিত কমিটি চলতি মাসের ২৭ তারিখ তদন্ত প্রতিবেদন প্রদান করবে।

প্রতিবেদন পর্যালোচনা ও চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য আগামী ২৯ আগস্ট আল্লামা শাহ আহমদ শফীর উপস্থিতিতে হাটহাজারী মাদরাসায় আবারো খাস কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। ওই বৈঠকে প্রতিবেদনের আলোকে মাওলানা আব্দুল কুদ্দুসের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এসময় আল্লামা শফীর কার্যালয়ে খাস কমিটির বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন- বেফাকের সহ-সভাপতি মুফতী মুহাম্মাদ ওয়াক্কাস, মাওলানা নূরুল ইসলাম, মাওলানা সফিউল্লাহ, মাওলানা সাজিদুর রহমান, মুফতী ফয়জুল্লাহ, মাওলানা মুসলেহুদ্দীন রাজু, বেফাক মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা নুরুল আমিন ও মাওলানা আনাস মাদানী।

ফেসবুকে লাইক দিন