আজকের দিনে একজন সালাহউদ্দিন আইয়ুবির বড় বেশি প্রয়োজন..

একবার রোম সম্রাজ্যে এক ইহুদী নাগরিক মুসলমান হওয়ার অপরাধে একজন মুসলমানের গালে চড় মেরেছিল।নিপীড়িত মুসলিম কেদে কেদে তৎকালিন মুসলিম খলিফা সালাউদ্দিন আইয়ুবিকে (ইতিহাসে যাকে জালেম সম্রাট নামে অখ্যাতি দেয়া হয়েছে) উদ্দেশ্য করে বলেছিল আজ আমি মুসলিম বলে লাঞ্চিত হয়েছি। আর তুমি সিংহাসনে বসে আয়েশ করছ। মনে রেখো কাল কেয়ামতের দিন আল্লাহর দরবারে তোমাকেই কাঠগড়ায় দাড়াতে হবে। কি দিবে জবাব তা আজ থেকেই ঠিক করে নাও।

একজন সাধারন মুসলমানের হাহাকার বাগদাদি সিপাহসালার খলিফাতুল মুসলিমিনের কানে পৌছানো মাত্র নাওয়া খাওয়া ভুলে গেলেন। মুসলিম কুটনিতিকের সাহায্য সূদুর রোম থেকে সেই ইহুদীকে মুরগির বাচ্চার মত তুলে নিয়ে এলেন বাগদাদে, হাজির করলেন নিপীড়িত মুসলিম ব্যাক্তিকেও। আর বললেন নিয়ে নাও তুমি তোমার অপমানের প্রতিশোধ। তুমি বদলা না নেয়া পর্যন্ত আমি জান্নাতের আশা ছেড়ে দিয়েছি।

আর কাফের ইহুদির উদ্দেশ্য বলেছিলেন যতদিন ইসলাম আল্লাহর জমিনে প্রতিষ্ঠিত আর আমি জীবিত আছি ইনশাআল্লাহ একটি মুসলমানেরও আস্ফালন সহ্য করা হবেনা। আমরা সেই মুসলিম জাতি!!!

কিন্তু আজ কি দেখছি? আজ কি হল মুসলিম জাতির? সিরিয়া, আফগানিস্তান, ইরাক, মায়ানমার, ফিলিস্তিন সব জায়গায় আমরা পাখির মত মরছি। মাঝে মাঝেই দেখা যায় মুসলিমের চামড়া লাগানো মুনাফেকের দল মুসলমানের রক্তে স্নান করছে।

সর্বশেষ আফগানিস্তানে বোমা হামলায় ১০১ কোরআনের হাফেজ সহ প্রায় দুইশো নিরীহ মুসলমান নিহত করা হয়েছে। আমরা কি সেই মুসলিম জতি, যাদের পূর্ব পূরুষ তারিক বিন যিয়াদ ২-৩ মতান্তরে ৫ হাজার সৈন্য নিয়ে স্পেনে রড্রিকের লক্ষাধিকেরও বেশি বিশাল বাহিনীর সাথে যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন। যিনি মনোবল বৃদ্ধির লক্ষ্যে নিজেদের যুদ্ধ জাহাজে নিজেই আগুন ধরিয়ে দিয়েছিলেন। অধিকাংশ মুসলমানের ধারনা আমরা দূর্বল প্রতিবাদ করলে সমূলে নিপাত হব।

হায় আমার মুসলিম জাতি আমরা সেই খালিদ বিন ওয়ালিদের বংশধর যিনি যুদ্ধ ময়দানে আসলে অর্ধ সংখ্যক শত্রু বাহিনী ময়দান ছেড়ে পালাত।

রাসুল (সঃ) বলেছেন, ”যে মুসলিম অন্য মুসলিমের বিপদে এগিয়ে আসেনা সে মুসলমানের অন্তর্ভূক্ত নয়”।

আজকের দিনে একজন সালাহউদ্দিন আইয়ুবির বড় বেশি প্রয়োজন ছিল। যিনি প্রতিটা মুসলমানের রক্তের দাম ইঞ্চি ইঞ্চি করে বুঝে নিতেন। ভয় হয় দ্বায়িত্ব অবহেলার কারনে আমাদের উপর না জানি কি গজব নেমে আসে।

ইয়া ‘সুবহানাল্লাহিল আরশিল আজিম’ আপনি ছাড়া আপনার বান্দাদের আর কোন আশ্রয়স্থল নেই। ক্ষমা করুন ইয়া মাবুদে ইলাহি, হে আল্লাহ রক্ষা করুন আপনার প্রিয় বান্দাদের এবং তাদের কলিজার টুকরো সন্তানদের। আমিন।।

ফেসবুকে লাইক দিন