আখেরাতে যারা সফল হবেন..

আখেরাতে কেও কাওকে চিনবে না ৷ সকলেই নিজের মুক্তির চিন্তা করবে ৷ পড়তে থাকবে ইয়া নফসী, ইয়া নফসী ৷…

আখেরাতে সফল হতে তাহলে কী করণীয়? কারা-ই বা সফল হবে? সে সম্পর্কে কিছু আলোকপাত করা হলো ৷

আখেরাতের ক্ষতি থেকে ওই সব ব্যক্তিরাই মুক্ত, যারা আল্লাহর প্রতি অবিচল আস্থা এবং বিশ্বাসের সঙ্গে সঙ্গে সৎ কাজ করে এবং অন্যকেও বিশুদ্ধ বিশ্বাস ও ধৈর্যের উপদেশ দেয়।
সূরা আসর-এর শেষ আয়াতে আল্লাহ তায়ালা সফলতা লাভকারী পরিচয় এভাবেই তুলে ধরেছেন।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে লক্ষ্য করে অন্য আয়াতে ইরশাদ করেন,
‘তোমাদের মধ্যে এমন এক জাতি সৃষ্টি হওয়া জরুরি; যারা (নিজেরে পাশাপাশি অন্য লোকদেরকেও) কল্যাণের দিকে আহ্বান করবে, সৎ কাজের আদেশ দেবে এবং অন্যায় কাজ থেকে বিরত রাখবে। আর তারাই (পরকালে সাওয়াব লাভে) পরিপূর্ণ সফলকাম।
(সূরা আল-ইমরান : আয়াত ১০৪)

উল্লেখিত আয়াতদ্বয়ে আল্লাহ তাআলা সফলতা লাভকারীদের পরিচয় তুলে ধরেছেন। আর সফলতার কিছু মূলমন্ত্রও ঘোষণা করেছেন।

দুনিয়ায় যে কাজ করলে আখেরাতের সফলতা সুনিশ্চিত, সেসবের বাস্তবায়ন করাও জরুরি। আর তা হলো-
>> আল্লাহর ভয় এবং তাঁর রুজ্জুকে দৃঢ়ভাবে আঁকড়িয়ে ধরার মাধ্যমে নিজেদের আত্মসংশোধনে একনিষ্ঠ হওয়া।
>> দাওয়াত ও তাবলিগের মাধ্যমে নিজের সংশোধনের পাশাপাশি অন্যের সংশোধনেও ভূমিকা রাখা।
>> সর্বাবস্থায় মহান আল্লাহ তায়ালার প্রতি অবিচল আস্থা এবং বিশ্বাস রাখা।
>> রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের বাস্তবজীবনে পালনীয় আদর্শসমূহ আপোসহীন অনুসরণ ও অনুকরণ করা।
>> আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় মুসলিম উম্মাহর মধ্যে পরিপূর্ণ ভ্রাতৃত্ববোধ বজায় রাখা।

আল্লাহ তায়ালা আমাদের আখেরাতে অপমান অপদস্থ হওয়া থেকে রক্ষা করুন এবং আখেরাতে আমাদের সফল করুন ৷ আমীন ৷

সংগ্রহ ও সম্পাদনায়: মাওলানা শহীদুল্লাহ নাজীব আল-হাবিবী

ফেসবুকে লাইক দিন