রাসুল (স.)-কে কটূক্তি: ফাঁসির দাবিতে ময়মনসিংহে তৌহিদী জনতার বিক্ষোভ সমাবেশ

ইমান২৪.কম: রাসুল সা.কে কটূক্তি করার প্রতিবাদে, অন্তর সরকারের ফাঁসির দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে ইত্তেফাকুল উলামা বৃহত্তর মোমেনশাহী। আজ ২ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) নগরীর বড় মসজিদে জোহর নামাজের পর এই প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, দেশের স্থিতিশীল পরিস্থিতি ঘোলাটে করতে একটা মহল ইসলামকে নিয়ে বিভিন্নভাবে কটাক্ষ করার সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে, তাদের কে চিহ্নিত করে কঠিন আইনের আওতায় আনা হোক।

তারা আরো বলেন, আমরা ভোলা জেলায় যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিলো সেদিকে যাবো না, আমরা সরকারের কাছে শান্তশিষ্টভাবে আবেদন করবো, রাসুল সা. এবং ইসলামকে নিয়ে কুটূক্তিকারীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয়ভাবে সর্বচ্চ মৃত্যুদণ্ডের আইন প্রণয়ন করুন, অন্যথায় রাসুল প্রেমিকরা বেশিদিন ঘরে বসে থাকবে না। এই ধরণের পরিস্থিতি যেনো আর না ঘটে সেই জন্য সরকারের কাছে আমরা তিনটি দাবি পেশ করছি,

১.মহানবী সা.কে কুটূক্তিকারী ও ধর্ম অবমাননা কারীর সর্বচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে জাতিয় সংসদে আইন পাস করা হোক।

২.ময়মনসিংহ পলিটেকনিক কলেজের গ্রেফতারকৃত ছাত্র অন্তর সরকারের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি নিশ্চিত করা হোক।

৩.মহানবী সা.কে শেষ নবী অস্বীকারকারী কাদিয়ানীদের কে রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলিম ঘোষণা করা হোক।

ইত্তেফাকুল উলামার মজলিসে শূরার সভাপতি আল্লামা আব্দুর রহমান হাফেজ্জীর সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন, বড় মসজিদের পেশ ইমাম,শাইখুল হাদীস আল্লামা আব্দুল হক। মজলিসে আমেলার সভাপতি মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ্ সা’দী। জেলার সভাপতি মাওলানা মুহিব্বুল্লাহ্।

কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ। জেলা সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মানযির আহসান খাঁন তাবশির। এবং অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন মেয়র,ইকরামুল হক টিটু সহ ইত্তেফাকের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দগণ। মেয়র টিটু বলেন, আমি সমস্ত উলামায়ে কেরামগণের সাথে একাত্বতা পোষণ করছি।

তিনি আরো বলেন, যে ৮টি ধারায় অন্তর সরকারকে গ্রেফতার করে হাজতে পাঠানো হয়েছে, আমি আশা করবো সে কোনভাবেই আইনের হাত থেকে বাঁচতে পারবে না। যদি কোনভাবে সে বের হয়ে যায়, তাহলে আমি এবং আমার নগরবাসীকে উলামায়ে কেরামগণ যেভাবে পরিচালিত করবেন, আমরা সেই পথেই হাটবো, এটা আমি মেয়র হিসেবে নয়, একজন তৌহিদী জনতা হয়ে বলছি।

প্রতিবাদ সমাবেশটি ময়মনসিংহের কৃষ্ণচূড়া চত্বরে হওয়ার কথা থাকলেও, নিরাপত্তা বিঘ্নিত হবে আশংকা করে,কোথাও সমাবেশ করার অনুমতি দেয়নি ময়মনসিংহ পুলিশ প্রসাসন, পরে ইত্তেফাকের নেতৃবৃন্দগণ পরামর্শের মাধ্যমে প্রতিবাদ সমাবেশ নামকরণ করে,ময়মনসিংহ বড় মসজিদের ভিতরে সমাবেশের আয়োজন করে।

ফেসবুকে লাইক দিন