আইএসের সর্বশেষ ঘাঁটি ধ্বংস, আত্মসমর্পণ করছে অনেকে

ইমান২৪.কম: ইসলামিক স্টেটের সর্বশেষ ঘাঁটির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে কুর্দি যোদ্ধারা। পরাজয় নিশ্চিত জেনে পালানোর চেষ্টা করছে আইএস সদস্যরা। পালানোর সময় কুর্দিদের হাতে আটক হয়েছে শত শত আইএস সদস্য।

সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্স (এসডিএফ) জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত তারা প্রায় ৪ শতাধিক জিহাদিকে আটক করেছে। তবে এখনো সেখানে অনেক আইএস জঙ্গি রয়েছে যাদেরকে ঘিরে রেখেছে কুর্দি যোদ্ধারা। ওই জঙ্গিরা আত্মসমর্পণও করছে না। তবে ঠিক কত আইএস সদস্য এখনো ঘেরাও রয়েছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

সেখানে সাংবাদিকরা গিয়ে দেখতে পায় মরুভূমির মধ্যেই আইএস সদস্যদের স্ত্রীদের জড়ো করেছে এসডিএফ সদস্যরা। সাংবাদিকদের দেখে ওই নারী জঙ্গিরা উত্তেজিত হয়ে চিৎকার করতে থাকে। এসময় তারা উচ্চস্বরে বলতে থাকে, ইসলামিক স্টেট টিকে থাকবে, আল্লাহ মহান।

প্রায় ৪ বছর আন্তর্জাতিক চেষ্টার পর বাঘৌজে আইএসের সর্বশেষ ঘাঁটি ধ্বংস হয়েছে। মাত্র ১ বর্গকিলোমিটারের মধ্যে এখন বাকি আইএস সদস্যদের ঘিরে ফেলা হয়েছে। গত এক সপ্তাহে অনেক আইএস সদস্য তাদের স্ত্রীদের নিয়ে এসডিএফের কাছে আত্মসমর্পণ করেছে।

অপর এক খবরে বলা হয়, ইরাকে আটক ইসলামিক স্টেটের বিদেশি সদস্যদের মৃত্যুদন্ড দেয়া হতে পারে। এমন আভাষই দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট বারহাম সালিহ।

আবুধাবি ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম দি ন্যাশনালকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি এ কথা বলেছেন। শুক্রবার ওই সাক্ষাতকারে সালিহ বলেন, আইএস জঙ্গিদেরকে ইরাকের আইন অনুযায়ী বিচার করা হবে। ইরাকের সাধারণ মানুষ হত্যার দায়ে তাদেরকে মৃত্যুদন্ড দেয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, ইরাকের আইনে মৃত্যুদন্ড বহাল রয়েছে এবং আমরা এ আইন প্রয়োগ করতে চাই। গত মাসে ইরাকের সেনাবাহিনী জানিয়েছে যে, সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্স তাদের কাছে প্রায় ২৮০ আইএস জঙ্গিকে হস্তান্তর করেছে। এদের মধ্যে রয়েছে বিদেশি জঙ্গিরাও। এরকম আরো ৫০০ জঙ্গিকে পাঠানোর কথা চলছে।

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী আদেল আব্দুল মাহদি তখন বলেছিলেন, ইরাক বিদেশী জঙ্গিদের তাদের দেশে পাঠানোর চেষ্টা করবে। ব্যর্থ হলে ইরাকি আইনেই তাদের বিচার করা হবে। আল-জাজিরা।

আরও পড়ুন: যারা গরু-ছাগলের মত বিক্রি হয় তারা দালাল: ড. কামাল

মেননের বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে তথাকথিত ধর্মান্ধরা আবার মাঠে নেমেছে: নাসিম

নৃত্যানুষ্ঠানের কারণে মসজিদের আযান বন্ধ করে দিলো স্থানীয় আ.লীগ নেতা (ভিডিও)

মেনন-ইনুরা স্পর্ধার সীমা অতিক্রম করছে, এখনই তাদের লাগাম টেনে ধরতে হবে: ড. আ. ফ. ম. খালিদ হোসেন

ভারতীয় পাইলট অভিনন্দনের ছেলেকে লেখা পাকিস্তান সেনাবাহিনীর মর্মস্পর্শী চিঠি

ফেসবুকে লাইক দিন