অচিরেই কাশ্মীরের সব দল একজোট হয়ে লড়াই শুরু করবে: ফারুক আবদুল্লাহ

ইমান২৪.কম: ভারতের বিরুদ্ধে লড়ায়ের জন্য একজোট হয়েছে কাশ্মীরের প্রধান ৬টি রাজনৈতিক দল। এ দলগুলোর নেতৃত্ব দিচ্ছেন কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও ন্যাশনাল কনফারেন্স (এনসি) এর সভাপতি ফারুক আবদুল্লাহ।

গঠিত এ ঐতিহাসিক জোট নিয়ে গত সোমবার (২৪ আগস্ট) দি হিন্দুকে এক বিশেষ সাক্ষাতকার দেন তিনি। সাক্ষাতকারে ফারুক আব্দুল্লাহ বলেন, গোপকার ঘোষণা’র আলোকে জনগণের অধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে এসব দল শিগগিরই লাদাখ ও জম্মুতে প্রচারকাজ শুরু করবে।

সাম্প্রতিক যৌথ বিবৃতি আসলে গত বছরের ৪ আগস্ট আমরা যা বলেছিলাম, তারই পুনরাবৃত্তি। আমরা আশা করব, মেহবুবা মুফতী শিগগির মুক্তি পাবেন, আমরা কেবল কাশ্মীরের জন্যই নয়, জম্মু, লেহ ও কার্গিলের মানুষদেরও এই আন্দোলনে নিয়ে আসব।

এটা আমাদের অধিকারের জন্য লড়াই। তিনি বলেন, এখন কোনো এক দল বা একজন ফারুক আবদুল্লাহর একতরফা সিদ্ধান্ত গ্রহণযোগ্য হবে না। আমাদের লক্ষ্য হলো এই রাজ্যের মর্যাদা ও জনগণের সম্মান পুনরুদ্ধার।

এটা ক্ষমতার জন্য লড়াই নয়। ভবিষ্যতে এটির নির্বাচনী জোটে পরিণত হওয়ার সম্ভাবনাও নাকচ করে দেননি তিনি। প্রবীণ এই নেতা বলেন, আমরা একসাথে বসে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব। গত বছরের ৫ আগস্ট থেকে কয়েক মাস ধরে ভারতের নির্মম কারাগারে বন্দি ছিলেন আবদুল্লাহ।

তিনি তার বন্দি জীবনের স্মৃতিচারণ করে বলেন, আমার সাথে অপরাধীর মতো আচরণ করা হয়েছে। আমাকে চোর বলা হয়েছে, কঠোর আইন প্রয়োগ করা হয়েছে। যেন আমি সন্ত্রাসী।

আমি একজন এমপি, অথচ ফোনও দেওয়া হয়নি। মনে হয়েছে, সন্ত্রাসী হলে বোধহয় বেশি সুবিধা পেতাম। তিনি বলেন, বন্দী সময়ে দরজায় তার মেয়েকে পড়ে যেতে দেখাটা ছিল তার জীবনের দ্বিতীয় সবচেয়ে কঠিন মুহূর্ত। ড. ফারুক আব্দুল্লাহ বলেন, চিকিৎসার জন্য আমাদেরকে কয়েক দিন ডাক্তারের কাছে যেতে হয়েছিল।

তা ছিল সবচেয়ে মর্মান্তিক ঘটনা। আমাকে সব কিছু বহন করতে হতো। কারাগারে কুরআনের কারণেই আমি বেঁচে আছি। আমি প্রতিদিন কুরআন তিলাওয়াত করি।

ফেসবুকে লাইক দিন